খুলনার ময়নাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ছাত্র মাত্র ১জন! - Nagorik Vabna
  1. info.nagorikvabna@gmail.com : Rifan Ahmed : Rifan Ahmed
  2. smborhan.elite@gmail.com : Borhan Uddin : Borhan Uddin
  3. holysiamsrabon@gmail.com : Holy Siam Srabon : Holy Siam Srabon
  4. mdmohaiminul77@gmail.com : Mohaiminul Islam : Mohaiminul Islam
  5. ranadbf@gmail.com : rana :
  6. newsrobiraj@gmail.com : Robiul Islam : Robiul Islam
খুলনার ময়নাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ছাত্র মাত্র ১জন! - Nagorik Vabna
শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ১১:৫৮ অপরাহ্ন
ঘোষণা:
দেশব্যাপী প্রচার ও প্রসারের লক্ষে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহীরা সিভি পাঠান info.nagorikvabna@gmail.com অথবা হটলাইন 09602111973-এ ফোন করুন।

খুলনার ময়নাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ছাত্র মাত্র ১জন!

  • সর্বশেষ পরিমার্জন : শনিবার, ৭ মে, ২০২২
  • ৪২ বার পড়া হয়েছে

ডুমুরিয়ার ২০টি বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী সংখ্যা ৫০ জনের নিচে

জন্মহার শূন্যের কোটায়, ৭ বছরে এই গ্রামে একটি শিশুরও জন্ম হয়নি!

জেমস রহিম রানা: খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলার ময়নাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৩ জন শিক্ষক থাকলেও ছাত্র মাত্র ১জন। তাছাড়া উপজেলার আরও ২০টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৫০ জনের নিচে।
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সুত্র জানা গেছে, ডুমুরিয়া উপজেলার ২’শ ১৪টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে আগের ১’শ ১০টির সঙ্গে নতুন জাতীয়করণকৃত ১’শ ৪টি বিদ্যালয়ে ২২ হাজার ৬’শ ১৭ জন ছাত্র-ছাত্রী আছে। এর ২১টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে পুরাতন ৮টির সঙ্গে নতুন জাতীয়করণকৃত ১৩টি বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সংখ্যা ৫০ জনের নিচে। তার মধ্যে ময়নাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ২য় শ্রণিতে পড়ুয়া অর্পণ সরকার-ই এক মাত্র ছাত্র।

১৪টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত ডুমুরিয়া উপজেলার ১নং ধামালিয়া ইউনিয়নের ময়নাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ১ জন ছাত্রকে পড়াচ্ছেন ৩ জন শিক্ষক, আর বিডি সরকারি প্রাথমিক বিদ‍্যালয়ে ৪ জন শিক্ষক পড়াচ্ছেন ৪৫ জন শিক্ষার্থী। ৬নং মাগুরাঘােনা ইউনিয়নের কুড়েঘাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ‍্যালয়ে শিক্ষক ৪জন, শিক্ষার্থী ৪৫জন। ৭নং শােভনা ইউনিয়নের পল্লীশ্রী সরকারি প্রাথমিক বিদ‍্যালয়ে শিক্ষক ৪জন, শিক্ষার্থী ৪১জন , খাররাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ‍্যালয়ে শিক্ষক ৪জন শিক্ষার্থী ৪২ ও পি,কে বলাবুনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ‍্যালয়ে শিক্ষক ৪জন শিক্ষার্থী ৪৬ জন। ৮নং শরাফপুর ইউনিয়নের জালিয়াখালী চাঁদগড় সরকারি প্রাথমিক বিদ‍্যালয়ে শিক্ষক ৪জন শিক্ষার্থী ৪২জন । ৯নং সাহস ইউনিয়নের লতাবুনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ‍্যালয়ে শিক্ষক ৪জন, শিক্ষার্থী ২৫ জন ও চরচরিয়া নারায়ণ চন্দ্র চন্দ সরকারি প্রাথমিক বিদ‍্যালয়ে শিক্ষক ৫জন, শিক্ষার্থী ৪০জন । ১০নং ভান্ডারপাড়া ইউনিয়নের খড়িবুনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ‍্যালয়ে শিক্ষক ৪জন, শিক্ষার্থী ৩৪জন, ধানিবুনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ‍্যালয়ে শিক্ষক ৪জন, শিক্ষার্থী ৩৭জন , তালতলা কুশারহুলা সরকারি প্রাথমিক বিদ‍্যালয়ে শিক্ষক ৪জন, শিক্ষার্থী ৩২, বকুলতলা ধানিবুনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ‍্যালয়ে শিক্ষক ৫জন শিক্ষার্থী ৪২, লােহাইডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ‍্যালয়ে শিক্ষক ৪জন শিক্ষার্থী ৪৩জন ও জাবড়া ওড়াবুনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ‍্যালয়ে শিক্ষক ৫জন, শিক্ষার্থী ৩৮জন । ১২নং রংপুর ইউনিয়নের সাড়াভিটা নরেন্দ্র নাথ সরকারি প্রাথমিক বিদ‍্যালয়ে শিক্ষক ৪জন, শিক্ষার্থী ৪৫জন এবং ১৪নং মাগুরখালি ইউনিয়নের কােড়াকাটা শুকুরমারী সরকারি প্রাথমিক বিদ‍্যালয়ে শিক্ষক ৪ জন শিক্ষার্থী ৩৯জন, বাগারদাইড় সরকারি প্রাথমিক বিদ‍্যালয়ে শিক্ষক ৪জন, শিক্ষার্থী ৪৩জন, কৈপুকুরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ‍্যালয়ে শিক্ষক ৪ জন, শিক্ষাথী ৩৬জন, লাঙ্গলমাড়া খাগড়াবুনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ‍্যালয়ে শিক্ষক ৪জন, শিক্ষার্থী ৪৬জন ও পূর্ব পাতিবুনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ‍্যালয়ে শিক্ষক ৪জন,শিক্ষার্থী ৩৭ জন আছে।
এ প্রসঙ্গে ময়নাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মাত্র ১জন ছাত্র থাকার কথা স্বীকার করে দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক স্বপ্না রানী বলেন, ২৯টি পরিবার নিয়ে আমাদের ময়নাপুর গ্রাম। অজ্ঞাত কারণে এখানকার মানুষের প্রজননক্ষমতা দিনদিন কমে যাচ্ছে। এই গ্রামে গত ৭ বছরে কােন বাচ্চা জন্মেনি বলে স্কুলে ছাত্র-ছাত্রীর এই দুরাবস্থা। এই কারণে বর্তমানে এই গ্রামে কেউ ছেলে মেয়ের বিয়ে দিতেও চাচ্ছেন না।
ডুমুরিয়া উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার সিকদার আতিকুর রহমান বলেন, শিক্ষার্থী সার্ভের পর গত মার্চ মাসে ময়নাপুর স্কুলটি বন্ধের জন্য জেলা শিক্ষা অফিসে লিখেছি। কিন্ত এখনও সিদ্ধান্ত আসেনি।

খুলনা জেলা শিক্ষা অফিসার মাে. সিরাজুদ্দােহা বলেন, ওই স্কুলটি বন্ধ করে সেখানকার শিক্ষকদের অন্যত্র বদলী করার জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে লিখেছি। সিদ্ধান্ত বা নির্দেশনা পেলে সেই অনুযায়ী ব্যবস্হা নেয়া হবে।

ডুমুরিয়ার অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক অরবিন্দু মন্ডল বলেন, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলােতে যদি পড়ালেখার মান ভালাে হতাে, তবে যত্রতত্র এতাে কিন্ডারগার্টেন গড়ে উঠতাে না, বা সরকারি স্কুল ছাত্র-ছাত্রীর ঘাটতি হতাে না। আর যেসব বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী কম সেখানে বিশেষ উদ্যােগ নেয়া প্রয়ােজন।




আরো সংবাদ পড়ুন







নাগরিক ভাবনা লাইব্রেরী

Sat Sun Mon Tue Wed Thu Fri
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031  




আজকের ছাপা সংস্করণ