প্রধানমন্ত্রীর উপহার ঘর নির্মাণে অনিয়ম! প্রধানমন্ত্রীর উপহার ঘর নির্মাণে অনিয়ম! – Nagorik Vabna
  1. info.nagorikvabna@gmail.com : Rifan Ahmed : Rifan Ahmed
  2. mdmohaiminul77@gmail.com : Mohaiminul Islam : Mohaiminul Islam
রবিবার, ২০ জুন ২০২১, ০৩:৩৮ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা:
দেশব্যাপী প্রচার ও প্রসারের লক্ষে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহীরা সিভি পাঠান info.nagorikvabna@gmail.com অথবা হটলাইন 09602111973-এ ফোন করুন।




প্রধানমন্ত্রীর উপহার ঘর নির্মাণে অনিয়ম!

  • সর্বশেষ পরিমার্জন : মঙ্গলবার, ১ জুন, ২০২১
  • ১৭৫ বার পড়া হয়েছে

মো: জুয়েল মিয়া, তাড়াইল(কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি: মুজিব বর্ষ উপলক্ষে গৃহহীন ও ভূমিহীন মানুষদের জন্য প্রধানমন্ত্রী দুই শতাংশ জমিসহ আধা পাকা ঘর দেওয়ার ঘোষণা দেন। এই ঘোষণা ইতিমধ্যে সরকার সারাদেশে বাস্তবায়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। প্রতিটি আধা পাকা ঘরের জন্য বাজেট ১ লক্ষ ৯০ হাজার টাকা। এরই ধারাবাহিকতায় তাড়াইলেও বেশ কিছু ঘর নির্মান করা হয়েছে। ঘর নির্মাণের এক মাস না পার হতেই কিছু ঘর ভেংগে গিয়েছে। তাছাড়াও বেশিরভাগ ঘরের দেওয়ালে ফাটল, প্রশাসনের এই অদক্ষতা প্রধানমন্ত্রীর উপহারকে উপহাসে পরিনত করেছে। তাছাড়াও কিছু ঘর নির্মানাধীন রয়েছে, যাতে নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার করা হচ্ছে।

ভুক্তভোগীদের অভিযোগ পি আই ও অফিসের হারুন বিভিন্ন লোকদের বে-আইনীভাবে কন্ট্রাক্ট দিয়ে কাজ করাচ্ছেন। কার্য সহকারী হারুন অর রশিদ নিম্ন মানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে ঘর নির্মান করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। তাড়াইল উপজেলার রাউতি ইউনিয়নের মেছগাও গ্রামে গিয়ে দেখা যায় যে, নিম্ন মানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে ঘর নির্মান করায়, বেশ কয়েকটি ঘর ধসে পরেছে। সিমেন্ট এ এম গ্রেডের দেওয়ার কথা থাকলেও বি এম গ্রেড দেওয়া হয়। কাঠ মেহগনি, শীল কড়ই এই রকম ভাল মানের কাঠ দেওয়ার কথা থাকলেও নিম্ন মানের রেইন ট্রি কাঠ ব্যবহার করা হচ্ছে। ঘরে নেই কোন ইটের গাথুনি বা ফাউন্ডেশন, বালু এফ এম ১ঃ২ ব্যবহার করার কথা থাকলেও নিম্ন মানের বালু ব্যবহার করা হয়। এখন পর্যন্ত নিরাপদ পানি ও বিদ্যুৎ নিশ্চিত করা হয় নি। আবাসনের মাঝখানে রয়েছে পুকুরের ন্যায় গর্ত। তাছাড়াও অন্যন্য ঘরের দেওয়ালে ফাটল দেখা দিয়েছে। ভুক্তভোগীরা অভিযোগ করেন যে, আমরা আতংকের মধ্যে আছি কখন যে ঘর মাথার উপর ভেংগে পরে।এই চিন্তায় রাতে ঘুমাতে পারি না। এর চেয়ে ছনের ঘর অনেক ভাল।

অনেকেই ঘর থাকলেও ভাড়া বাসায় থাকেন। তাদের অভিযোগ ভয়ে তারা এখানে থাকেন না।
আশ্রয়ন – ২ এর নির্মাণেও একই অনিয়ম চোখে পরে।

এই বিষয়ে তাড়াইল উপজেলা পি আই ও শহীদ উল্লাহ এর সাথে সাংবাদিক জোবায়ের কথা বললে, তিনি এই বিষয়ে কোন তথ্য দেন নি, তথ্য ফরমে আবেদন করলে তিনি তা নিতে অস্বীকৃতি জানান। এই বিষয়ে সব ইউএনও স্যার জানে।




সংবাদটি শেয়ার করুন

Comments are closed.

আরো সংবাদ পড়ুন




নাগরিক ভাবনা লাইব্রেরী

Sat Sun Mon Tue Wed Thu Fri
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
2627282930