1. news.rifan@gmail.com : admin :
  2. smborhan.elite@gmail.com : Borhan Uddin : Borhan Uddin
  3. arroy2103777@gmail.com : Amrito Roy : Amrito Roy
  4. holysiamsrabon@gmail.com : Siam Srabon : Siam Srabon
বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ১২:২৮ পূর্বাহ্ন
বিশেষ ঘোষণা :
সারাদেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহীরা শীঘ্রই 09602111973 অথবা 01819-242905 নাম্বারে যোগাযোগ করুন।

নোয়াখালীর হাতিয়া এখন সন্ত্রাসের অভয়াশ্রম : তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দিনেদুপুরে অহরহ ঘটছে হামলা-ভাংচুর-লুটপাটের মতো ঘটনা

  • সর্বশেষ পরিমার্জন: শনিবার, ১ জুন, ২০২৪
  • ৫০ বার পঠিত

# অদৃশ্য ইশারায় প্রশাসন ও অজানা আতংকে স্থানীয় এলাকাবাসী পালন করছে নীরব ভূমিকা

# হামলার অভিযোগে মামলা করায় সন্ত্রাসীদের অব্যাহত হুমকিতে চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছে বাদী ও তার পরিবার

# অভিযুক্ত অপরাধী স্থানীয় ও প্রভাবশালী হওয়ায় বীরদর্পে ঘুরে বেড়াচ্ছে জনসম্মুখে

# চিহ্নিত আসামীদের আটকে থানা পুলিশের গড়িমসি ও বিবিধ টালবাহানায় সচেতন মহলে বিরূপ প্রতিক্রিয়া

অনুসন্ধানী প্রতিবেদন: নোয়াখালীর হাতিয়া থানার সোনাদিয়াতে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ৭৫ বছর বয়সের বৃদ্ধের মাথা ফাটিয়ে দিয়েছে স্থানীয় প্রভাবশালীরা। এ ঘটনায় হাতিয়া থানায় মামলা হলেও এখন পর্যন্ত পুলিশ কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি।

মামলার অভিযোগে জানা যায়, গত ১৮ মে সকাল ৮.৩০ মিনিটে হাতিয়া থানার সোনাদিয়া ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের পূর্ব সোনাদিয়া গ্রামের ৭৫ বছর বয়সের বৃদ্ধ আব্দুল মালেকের জায়গায় লাগানো আম গাছ থেকে পাশের বাড়ীর আশ্রাফ আলী (৩৮) ও রাছেল উদ্দিন (২৮) আম পাড়তে থাকে। এসময় বৃদ্ধ আব্দুল মালেক বাধা দিলে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে আশ্রাফ ও রাছেল দা,ছেনি ও লোহার রড নিয়ে বৃদ্ধকে মারতে যায়। এ অবস্থায় তিনি প্রাণ ভয়ে দূরে সরে যায়। এতে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে হাতে থাকা দেশীয় অস্ত্র দ্বারা বসত ঘরে হামলা চালিয়ে পেশাদার সন্ত্রাসীর মত ভাংচুর করে রাছেল ও আশ্রাফ। এ ঘটনায় স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে বিষয়টি মিমাংসা করা হয়।

একইদিন বিকেল ৫.৩০ মিনিটে বৃদ্ধ মালেক মসজিদ থেকে নামাজ পড়া শেষে স্থানীয় মানিক বাজারের চায়ের দোকানে গেলে তিনি কেন বিষয়টি সমাজের মানুষকে জানালেন এগুলো নিয়ে আশ্রাফ আলী তাকে গালিগালাজ করতে থাকে। এক পর্যায়ে ক্ষিপ্ত হয়ে হাতে থাকা লোহার রড় দিয়ে বৃদ্ধের মাথায় আঘাত করলে মাথা ফেটে রক্ত ক্ষরন হয়। এসময় আশ্রাফের ভাই রাছেল লাঠি দিয়ে মাথায় আঘাত করতে গেলে হাত দিয়ে প্রতিহত করার সময় হাতেও জখম হয়। পরে স্থানীয় লোকজন ও আত্নীয়রা তাকে হাতিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। ডাক্তার আহত বৃদ্ধের মাথায় ৫ টি সেলাই দিয়েছে বলে জানা গেছে।

আহত বৃদ্ধের সাথে কথা বলতে ফোন করলে তার ছেলে ফায়েল বলেন, ডাক্তার বাবাকে বেশি কথা বলতে নিষেধ করেছেন। তিনি এখন বাসায় বিশ্রামে আছেন। আগামী ২/৩ দিনের মধ্যে মাথার সেলাই কাটা হবে বলেও জানান তিনি।

আসামীদের গ্রেফতারের বিষয়ে জানতে চাইলে হাতিয়া থানার ওসি জানান, আমরা উপজেলা পরিষদ নির্বাচন নিয়ে ব্যাস্ত থাকায় আসামীদের এখনো গ্রেফতার করতে পারি নাই। তবে গ্রেফতার প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

আরও খবর...