1. news.rifan@gmail.com : admin :
  2. smborhan.elite@gmail.com : Borhan Uddin : Borhan Uddin
  3. arroy2103777@gmail.com : Amrito Roy : Amrito Roy
  4. holysiamsrabon@gmail.com : Siam Srabon : Siam Srabon
মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ১১:০২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :




খুলনায় মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে প্রস্তুুতি নেওয়া হয়েছে যে সকল অনুষ্ঠানের

  • সর্বশেষ পরিমার্জন: মঙ্গলবার, ১২ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ৩১ বার পঠিত

বিপ্লব সাহা, খুলনা ব্যুরো: বাঙালি জাতির একটি ভূখণ্ডকে অবমুক্ত করার লক্ষ্যে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীদের বিরুদ্ধে দীর্ঘ নয় মাস যুদ্ধ করার পর ৩০ লক্ষ শহীদদের আত্মবলিদান ও তিন লক্ষ মা বোনের সম্ভ্রম হানির বিনিময়ে ১৯৭১ এর ১৬ ডিসেম্বর বাংলার আকাশে সবুজের বুকে লাল রক্ত খচিত পতাকা উড়িয়ে উল্লাসে মেতে উঠেছিল বাঙালি জাতি।

তারই প্রত্যয়ে খুলনা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মহান বিজয় দিবস ২০২৩ উপলক্ষে খুলনায় নানান কর্মসূচি গ্রহণ করেছেন।
উল্লেখিত কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে ১৬ ডিসেম্বর সূর্যোদয়ের সাথে সাথে গল্লামারী শহীদ স্মৃতি সৌধে পুষ্প মাল্য অর্পণ করা হবে। এবং ওই দিন একই সময় সকল সরকারি আধা সরকারি সাহিত্য শাসিত বেসরকারি ভবন প্রতিষ্ঠানে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে। সকাল সাড়ে আটটায় খুলনা জেলা স্টেডিয়ামে বিভাগীয় কমিশনার আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করবেন।

একই স্থানে সকাল আটটা চল্লিশ মিনিটে বীর মুক্তিযোদ্ধা পুলিশ আনসার, ভিডিপি, এমসিসি, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স, স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা সহ বিভিন্ন শিক্ষা ও সামাজিক প্রতিষ্ঠান শিশু কিশোর সংগঠন কারারক্ষী, বাংলাদেশ স্কাউট, রোভার স্কাউট, গার্লস গাইড এর অংশগ্রহণে বর্ণাঢ্য কুচকাওয়াজ এবং শরীরচর্চা প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হবে।

ঐদিন সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মুক্তিযোদ্ধা ভিত্তিক বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। জেলা উপজেলা সদরে স্কুল কলেজ ও মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের সমাবেশে ক্রীড়া অনুষ্ঠান টি – টুয়েন্টি ক্রিকেট টুর্নামেন্ট ফুটবল ও কাবাডি খেলার আয়োজন করা হবে। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত সিনেমা হলে শিক্ষার্থীদের জন্য বিনা টিকিটে মুক্তিযোদ্ধা ভিত্তিক চলচ্চিত্র প্রদর্শন করা হবে। ১৬ ডিসেম্বর দুপুর ১২ টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত খুলনা আঞ্চলিক তথ্য অফিস পিআইডির আয়োজনে শহীদ হাদিস পার্কে মুক্তিযুদ্ধের উপর স্তির চিত্র প্রদর্শন করা হবে। তাছাড়া ১৬ ডিসেম্বর খুলনা বিভাগীয় জাদুঘর ও ফুলতলা দক্ষিণ ডিহি রবীন্দ্র স্মৃতি জাদুঘর সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত রাখা হবে। বেলা ১১ টায় জেলা শিল্পকলা একাডেমি অডিটোরিয়ামে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের সন্তানদের সংবর্ধনা এবং জাতির পিতার স্বপ্নের বাংলা বিনির্মাণের মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণ ডিজিটাল প্রযুক্তির সর্বোত্তম ব্যবহার এবং বিজয় দিবসের তাৎপর্য শীর্ষক আলোচনা সভার আয়োজন করা হবে। এদিকে হাসপাতাল, জেলখানা, বৃদ্ধাশ্রম, এতিমখানা, শিশু বিকাশ কেন্দ্র ও শিশু পরিবার সমূহে বিশেষ খাবার পরিবেশন করা হবে। নৌবাহিনীর জাহাজ জনসাধারণের দর্শনের জন্য বিআইডব্লিউটিএ রকেট ঘাটে দুপুর ২টা হতে সূর্যাস্ত পর্যন্ত উন্মুক্ত রাখা হবে। অপরদিকে বাংলাদেশ বেতার খুলনা কেন্দ্র মহান বিজয় দিবসের সাথে সংহতি রেখে অনুষ্ঠানমালা প্রচার করবে।

তাছাড়া ১৬ ডিসেম্বর বাদ জোহর বা সুবিধা জনক সময়ে সন্ত্রাস জঙ্গিবাদ ও মাদক বিরোধী জনমত সৃষ্টির জন্য আলোচনা সভার আয়োজন করা হবে। এবং বীর শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের আত্মার মাগফেরাত এবং যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সুস্বাস্থ্য দীর্ঘায়ু জাতির শান্তি সমৃদ্ধি অগ্রগতির কামনা করে বাদ জোহর বা সুবিধা জনক সময় মসজিদে বিশেষ মোনাজাত এবং মন্দির, গির্জা, প্যাগাডো, ও অন্যান্য উপাসনালয় বিশেষ প্রার্থনা করা হবে। পাইনিয়র মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় মাঠে বিকাল তিনটায় নারীদের অংশগ্রহণে মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক আলোচনা সভা এবং বিকেল সাড়ে তিনটায় খুলনা জেলা স্টেডিয়ামে কেসিসি বনাম জেলা প্রশাসন একাদশের মধ্য প্রদর্শনী ফুটবল প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে।

দিবস টি উপলক্ষে বাদ মাগরিব জেলা শিল্পকলা একাডেমী মিলনায়তনে চিত্রাংকন, কবিতা আবৃত্তি ও দেশাত্মবোধক সংগীত প্রতিযোগিতা পুরস্কার বিতরণ এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে।

ঐদিন নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় স্থানীয় সংবাদ সমূহ নিবন্ধন সাহিত্য সাময়িকী ও ক্রোড়পত্র প্রকাশ করবে। তাছাড়া শহরের প্রধান প্রধান সড়ক ও সড়কদ্বীপসমূহ জাতীয় পতাকা সহ বিভিন্ন পতাকা দিয়ে সজ্জিত করা হবে। বিআইডব্লিউটিএ লঞ্চঘাটে স্টিমারে লঞ্চ ও জাহাজ সজ্জিত করা হবে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত গিলাতলা শিশু পার্ক শিশু পার্ক ওর ওয়ান্ডারল্যান্ড শিশু পার্ক বিনা টিকিটে শিশুদের জন্য উন্মুক্ত রাখা হবে। এবং ১৬ ডিসেম্বর সুবিধাজনক সময় শহীদ হাদিস পার্ক শিববাড়ি মোর এবং দৌলতপুর শহীদ মিনার চত্বর মুক্তি যোদ্ধা ভিত্তিক প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শন করা হবে। পাশাপাশি কালেক্টর ইস্কুলের কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক কুইজ ও রচনা প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে ১৫ ডিসেম্বর খুলনা শিশু একাডেমী শিশুদের চিত্র কবিতা আবৃত্তি ও দেশাত্মবোধক সংগীত প্রতিযোগিতার আয়োজন করবে। ১৬ ডিসেম্বর সকাল ন’টায় খুলনা সিটি কর্পোরেশনের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণের চিত্রাংকন ও রচনা প্রতিযোগিতার আয়োজন করবে। ঐদিন সুবিধাজনক সময়ে পূর্ব রূপসা ঘাটে বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল আমিনের মাজার প্রাঙ্গণে তার বীরত্ব ও মহান মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

আরও খবর...