1. news.rifan@gmail.com : admin :
  2. smborhan.elite@gmail.com : Borhan Uddin : Borhan Uddin
  3. arroy2103777@gmail.com : Amrito Roy : Amrito Roy
  4. holysiamsrabon@gmail.com : Siam Srabon : Siam Srabon
মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ১০:৪৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :




দেশের সম্পদ লুটপাট করে রাজকোষ শেষ করেছে সরকার: রিজভী

  • সর্বশেষ পরিমার্জন: রবিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ৭৯ বার পঠিত

অনলাইন ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের ভয়াবহ অর্থনৈতিক দেউলিয়াত্বে অসহায় হয়ে পড়েছেন দাবি করে বিএনপি সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, সরকার দেশের সব সম্পদ লুটপাট করে রাজকোষ শেষ করেছে। আমদানি করার মতো ডলার নেই। এলসি বন্ধ। সব টাকা বিদেশে পাচার করেছে। ১০০ বিলিয়ন ডলারের বেশি ঋণের পাহাড়। ১৫ বিলিয়ন ডলারের তলানিতে রিজার্ভ নামিয়ে এখন কমেডি করছেন রাষ্ট্র পরিচালনায় সম্পূর্ণ ব্যর্থ প্রধানমন্ত্রী।

শনিবার (৯ ডিসেম্বর) বিকালে ভার্চুয়াল এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, ১৫ বছরের বেশি সময় রাষ্ট্রক্ষমতা দখলে রেখে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়নের গল্প শুনিয়ে দেশকে স্বয়ংসম্পূর্ণ করার গলাবাজি করেছেন। এখন বলছেন, দুর্ভিক্ষ সৃষ্টি করবে বিএনপি। কী হাস্যকর কথা।

‘গুম, খুন, লুটপাট, ভোট ডাকাতি, কেন্দ্রীয় ব্যাংক লুট, অর্থপাচার, সীমাহীন মূল্যস্ফীতির হাত থেকে রেহাই পেতে এখন উদোর পিণ্ডি বুধোর ঘাড়ে চাপানোর ফন্দি আঁটছে সরকার। ইতোমধ্যেই শেখ হাসিনার অপশাসনে দুর্ভিক্ষের পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। অনাহার, ধ্বংস আর তাদের পাপের হাত থেকে পরিত্রাণ পেতে এ মুহূর্তে ব্যাপক গণআন্দোলন সৃষ্টি করতে হবে।’

তিনি বলেন, অর্থনীতিবিদরা বলেছেন-তিন মাস চলার মতো রিজার্ভ অবশিষ্ট আছে। তারপর দেউলিয়া ঘোষণা করা ছাড়া গত্যন্তর থাকবে না। সারা দেশ ভয়াবহ দুর্ভিক্ষ পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে পারে।

‘আসলে আওয়ামী লীগ আর দুর্ভিক্ষ একে অপরের পরিপূরক। আওয়ামী লীগ মানেই দুর্ভিক্ষ আর দুর্নীতি। তারা ক্ষমতায় এলে দেশে দুর্ভিক্ষ আনে। তাই আজ ভোটাধিকার, সরকারের গুম-খুন, অপহরণ-জুলুম, অবিচার ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে জনগণ রাজপথে লড়াই করছে। এ লড়াইয়ে আমাদের জয়লাভ করতেই হবে।’

বিএনপি সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, বর্তমানে যে আইজি প্রিজন আছেন, তিনি বিএনপির বন্দিদের সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত রাখতে মৌখিকভাবে সব কারাগারে নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে নিজের অবস্থান আরও দৃঢ় করতে শপথ নিয়েছেন-কারাগারের ভেতরেও বিএনপির নেতাকর্মীদের জুলুম করবেন এবং তাদের মানবাধিকারকে চরমভাবে লঙ্ঘন করবেন। কারাগারের ভেতরের সেলগুলোর বাইরে বের হওয়া বন্ধ করে দিয়েছেন। আত্মীয়স্বজনদের সাক্ষাৎ ও কাপড়চোপড় দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছেন। এমনকি মোবাইলে কথা বলা একেবারে সীমিত করা হয়েছে।

‘কারাগারগুলোতে এখন আর সত্যিকার সামাজিক অপরাধীরা থাকবে না। শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসেছেন এ কারাগারগুলো পরিপূর্ণ করবেন বিএনপির নেতাকর্মীদের দিয়ে। তাই কারাগারগুলোতে তিনি বেছে বেছে সেই ধরনের অফিসার নিয়োগ দিয়েছেন যারা তার ভাবধারায় অনুপ্রাণিত। অতি উৎসাহী অফিসাররা একপ্রকার দলীয় বন্দিদের ওপর যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন।’

সংবাদ সম্মেলনে রিজভী জানান, শুক্রবার দুপুর থেকে শনিবার দুপুর পর্যন্ত সারা দেশে ১৭৫ নেতাকর্মী গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ সময়ে পাঁচ মামলায় পাঁচ শতাধিক আসামি করা হয়েছে।

 

n/v

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

আরও খবর...