1. news.rifan@gmail.com : admin :
  2. smborhan.elite@gmail.com : Borhan Uddin : Borhan Uddin
  3. arroy2103777@gmail.com : Amrito Roy : Amrito Roy
  4. holysiamsrabon@gmail.com : Siam Srabon : Siam Srabon
মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ১২:২৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :




যশোরে মাদক সেবির বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশ করায় সাংবাদিককে হুমকি, থানায় অভিযোগ

  • সর্বশেষ পরিমার্জন: শনিবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ১৫৯ বার পঠিত

স্টাফ রিপোর্টার : যশোরের এক মাদসক্ত ছেলের কাছে অসহায় পরিবার ও গ্রামের মানুষ এই সংক্রান্ত সংবাদ প্রকাশ হওয়ায় তেলে বেগুনে জ্বলে উঠেছে সেই মাদকাশক্ত। সে অব্যাহত হুমকি দিয়ে চলেছে সংশ্লিষ্ট প্রতিবেদকসহ সম্পাদক প্রকাশকদের। এঘটনায় মণিরামপুর ও যশোর কোতয়ালী থানায় পৃথক দু’টি অভিযোগ দেয়া হয়েছে।

অভিযোগে প্রকাশ, সম্প্রতি ঢাকা থেকে প্রকাশিত জাতীয় পত্রিকা দৈনিক নাগরিক ভাবনা, দৈনিক চেতনায় বাংলাদেশ, যশোরের সাপ্তাহিক পল্লীকথা ও জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল স্বর্নলতা নিউজসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও অনলাইন পত্রিকায় ‍‍”যশোরের মনিরামপুরে মাদকাসক্ত ছেলের কাছে অসহায় পরিবার ও গ্রামের মানুষ” শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়। তারই জের ধরে মাদকসেবি আরিফুল ইসলাম রানা ও তার লোকজন যশোরের সিনিয়র সাংবাদিক, বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম (বিএমএসএফ) এর কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য ও দৈনিক নাগরিক ভাবনা পত্রিকার সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার জেমস রহিম রানাসহ দৈনিক চেতনায় বাংলাদেশ পত্রিকার সম্পাদক-প্রকাশক কে, এম, মোজাপ্ফার হুসাইন ও সাপ্তাহিক পল্লী কথা পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক দেব্রত ঘোষকে একের পর এক ফোন কলে হুমকি দিয়ে আসছে।

যশোর জেলার মনিরামপুর উপজেলার খাটুয়াডাঙ্গা গ্রামের আতিয়ার বিশ্বাসের ছেলে আরিফুল ইসলাম রানা দীর্ঘদিন যাবৎ মাদকের সাথে সম্পৃক্ত এমন তথ্যের ভিত্তিতে সাংবাদিক কে, এম, মোজাপ্ফার হুসাইন ও জেমস রহিম রানা ঘটনার তদন্ত করতে গিয়ে জানতে পারেন মাদকসেবি আরিফুল ইসলাম রানা দীর্ঘদিন যাবৎ মাদকের সাথে সম্পৃক্ত থাকলেও অজ্ঞাত কারণে প্রশাসনের ধরা ছোঁয়ার বাইরে রয়েছে। এলাকাবাসীর অভিযোগ আরিফ বর্তমানে মাদক সেবনের পাশাপাশি মাদকের ব্যাবসায় জড়িয়ে পড়েছে। এবং কতিপয় পুলিশ সদস্যের সাথে তার দহরম মহররম থাকায় পুলিশ তাকে আটক করেনা। ফলে তার নিজের পরিবারসহ এলাকাবাসী অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে।

এলাকাবাসি জানায়, আরিফুল ইসলামের বর্তমানে চাকরি না থাকায় সে মাদক সেবনের টাকা জোগাড় করতে পারছেনা। ফলে তার নিজ এলাকাসহ আশেপাশের এলাকা থেকে শুরু করে শশুর বাড়ি এলাকায়ও প্রতিনিয়ত করছে চুরি। তার বিরুদ্ধে এ প্রর্যন্ত মোবাইল, সাইকেল, মটরসাইকেল, কারেন্টের মোটর ও টিউবয়েলসহ ছোট বড় ৪০ এর উপর চুরির তথ্য মিলেছে ৷ চুরি করতে গিয়ে ধরাও খেয়েছে অনেকবার। তবে মণিরামপুর ও যশোরের কতিপয় পুলিশ সদস্যের সাথে তার গভীর সখ্যতা এবং আরিফের পিতা এলাকার একজন সম্মানী ব্যাক্তি ও মসজিদের ইমাম হওয়ায় সে বার বার রেহাই পেয়ে যায়।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

আরও খবর...