1. news.rifan@gmail.com : admin :
  2. smborhan.elite@gmail.com : Borhan Uddin : Borhan Uddin
  3. arroy2103777@gmail.com : Amrito Roy : Amrito Roy
  4. holysiamsrabon@gmail.com : Siam Srabon : Siam Srabon
মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ১১:৫৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :




ফেনী-৩ আসনে কে থাকবে নৌকা না লাঙ্ল

  • সর্বশেষ পরিমার্জন: শনিবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ৭৯ বার পঠিত

ফেনী প্রতিনিধি: দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ফেনী-০৩ (সোনাগাজী-দাগনভূঞা) আসনে ৭ প্রার্থী মনোনয়ন বৈধ বলে জেলা রির্টার্নিং অফিসারের ঘোষনার পর থেকে (আ’লীগ ও জাতীয় পাটি) মহাজোটের হেভিওয়েট দুই প্রার্থীর প্রতিদ্বন্দ্বিতা নিয়ে হাট-বাজার, চা দোকানে চলছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। নৌকা না লাঙ্গল! এবারও কি সরকার দলের সমর্থন নিয়ে নৌকার পরিবর্তে মহাজোটের লাঙ্গল (মহাজোট) প্রার্থীতা পাচ্ছেন? এ নিয়ে জনমতে নানান প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

জানা যায়, নৌকা মার্কার ১৪ জন মনোনয়ন প্রত্যাশীকে পেছনে ফেলে চতুর্থবারের মতো নৌকার দলীয় টিকেট পান দাগনভূঞার কৃতি সন্তান বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও বায়রা সভাপতি শিল্পপতি আবুল বাশার। যদিও ২০০৮ সালের নির্বাচনে তিনি বিএনপি ধানের শীষের প্রার্থীর কাছে ৪০ হাজার ভোটের ব্যবধানে হেরেছিলেন। দলীয় মনোনয়ন যুদ্ধে টিকে যাওয়ার পরও দুশ্চিন্তা যেন তার কাটছে না। আবারো কি তিনি চূড়ান্তভাবে দলীয় মনোয়ন পাচ্ছেন না। উভয় প্রার্থী স্থানীয় এলাকায় জনগণের সাথে ব্যাপকহারে দেখা সাক্ষাৎ করছেন।

গত নির্বাচনে আ’লীগ জোট নির্বাচনে অংশগ্রহণ করায় শরীক দল জাতীয় পার্টিকে উক্ত আসন ছেড়ে দেয়ায় মহাজোট প্রার্থী হয়ে জয় লাভ করেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক সেনা কর্মকর্তা সোনাগাজী কৃতি সন্তান লে: জেনারেল (অব:) মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী। এবারও আ’লীগের দলীয় মনোনয়নে আবুল বাশার নৌকার টিকেট পেলেও স্থানীয় এলাকার সাধারণ মানুষের ধারণা আ’লীগ এ আসনটি জাতীয় পার্টিকে ছেড়ে দিতে পারেন। যদিও উভয় প্রার্থী নিজ নিজ দলের দলীয় সিদ্ধান্তকে শেষ পর্যন্ত প্রাধান্য দিবেন বলে জানাচ্ছেন। এ নিয়ে চলছে স্থানীয় নির্বাচনী এলাকায় উভয় দলের নেতাকর্মীদের মাঝে উৎকণ্ঠা আর আলোচনা। সরকার দলীয় সমর্থন নিয়ে কে মাঠে শেষ পর্যন্ত প্রার্থী হয়ে আসছেন তার অপেক্ষায় উভয় দলের নেতাকর্মীদের। স্থানীয় আ’লীগের নেতাকর্মীরা যে যার মতো করে স্বয়ে, রয়ে মাঠে অবস্থান করছেন চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের আশায়।

তবে নির্বাচন সংশ্লিষ্টরা বলছেন এ বিষয়ে একক সিদ্ধান্তের জন্য আগামী ১৭ ডিসেম্বর মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

আ’লীগের নৌকার প্রার্থী আবুল বাশার জানান, ‘আমি আগে বারবার নৌকার টিকেট পেয়েও সর্বশেষ দলীয় সিদ্ধান্তের কারণে নিজের সিদ্ধান্তের পরিবর্তন করতে হয়। এবার আশা করি তা হবে না।

জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রার্থী সাবেক সেনা কর্মকর্তা লে: জেনারেল (অব:) মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী নয়া দিগন্তকে জানান, দল যে সিদ্ধান্ত দিবেন সে অনুযায়ী নির্বাচনী মাঠে আমরা থাকবো। আশা করি, মহাজোট না এককভাবে আমরা নির্বাচন করবো তা সময় বলে দেবে। সে পর্যন্ত আমাদের অপেক্ষা করতে হবে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

আরও খবর...