1. news.rifan@gmail.com : admin :
  2. smborhan.elite@gmail.com : Borhan Uddin : Borhan Uddin
  3. arroy2103777@gmail.com : Amrito Roy : Amrito Roy
  4. holysiamsrabon@gmail.com : Siam Srabon : Siam Srabon
  5. elmaali61@gmail.com : Elma Ali : Elma Ali
শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ০১:৪৬ পূর্বাহ্ন
বিশেষ ঘোষণা :
সারাদেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহীরা শীঘ্রই 09602111973 অথবা 01819-242905 নাম্বারে যোগাযোগ করুন।

খুলনা উন্নয়নের সর্বকালের সর্ববৃহৎ বাজেট ঘোষণা

  • সর্বশেষ পরিমার্জন: মঙ্গলবার, ৭ নভেম্বর, ২০২৩
  • ৯৪ বার পঠিত

বিপ্লব সাহা, খুলনা ব্যুরো: গত ১১ অক্টোবর কেসিসির মেয়র হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের ২৮ দিনের মাথায় এবং সদ্য প্যানেল মেয়র নির্বাচিত করার সাথে সাথে খুলনা সিটি কর্পোরেশন কেসিসি চলতি ২০২৩ ও ২৪ অর্থবছরের জন্য একহাজার ৮২ কোটি ৯৯ লাখ ১৯ হাজার টাকার বাজেট ঘোষণা করেছেন সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক।

নগর ভবনের শহীদ আলতাফ মিলনায়তনে এ বাজেট ঘোষণা করেন তিনি।

উল্লেখ্য কেসিসির ৩৩ বছরের ইতিহাসে এটি সর্ববৃহতাংকের বাজেট গেল অর্থবছরে ৬৯৭ কোটি ৭৫ লাখ টাকার বাজেট লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের হারে ৮১ শতাংশ। বাজেটে এবারও নতুন কোন কর আরোপ করা হয়নি।

তবে নিজস্ব আয়ের উৎস সম্প্রসারণ ও সীমানা সম্প্রসারণ এর মাধ্যমে কর্পোরেশনের আয় বৃদ্ধির পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে প্রস্তাবিত বাজেট রাজস্ব ধরা হয়েছে ১৯৬ কোটি ৫২ লাখ ৩৩ হাজার টাকা এবং সরকারি বরাদ্দ উন্নয়ন তহবিল হতে উন্নয়ন খাতে ব্যয় ধরা হয়েছে ৭৩৬ কোটি ৬ ৬ লাখ ৬৭ হাজার টাকা। যা গত ২০২২৩ অর্থবছরের বাজেটের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৮৬১ কোটি ৬ লাখ ২৭ হাজার টাকা ।

এবার সংশোধিত বাজেট যার আকার দাঁড়িয়েছে ৬৯৭ কোটি ৭৫ লাখ ৭৬ হাজার টাকা। লক্ষমাত্রা অর্জনের ৮১ শতাংশ উক্ত বাজেটের রাজস্ব তহবিল ক্ষেত্রে লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১৯২ কোটি ১১ লাখ ৩৮ টাকা। যা সংশোধিত বাজেটে দাঁড়িয়েছে ২৮২ কোটি ৯৯ লাখ ৩০ হাজার টাকা। এক্ষেত্রে নিজস্ব তহবিল অর্জনের হার ১৪৭ শতাংশ। উন্নয়ন তহবিল তথা সরকারি অনুদান ও দাতা সংস্থার বিশেষ প্রকল্প বিগত বাজেটের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৬৬৮ কোটি ৯৪ লাখ ৮৯ হাজার টাকা।কিন্তু তন্মধ্য পাওয়া যায় ৪১৪ কোটি ৭৬ লাখ ৪৬ হাজার টাকা। এক্ষেত্রে অর্জনের হার ৬২ শতাংশ বাজেট ঘোষণা কালে সিটি মেয়র বাজেটের মূল বৈশিষ্ট্যগুলো তুলে ধরে বলেন বাজেট এবারও নতুন কোন কর আরোপ করা হয়নি বকেয়া পৌরকর আদায় নগর নির্মিত সকল স্থাপনার ওপর প্রচলিত নিয়মে কর ধার্য এবং নিজস্ব আয়ের উৎস সম্প্রসারণ ও সীমানা সম্প্রসারণ এর মাধ্যমে কর্পোরেশনের আয় বৃদ্ধির পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। তিনি বলেন এটি একটি উন্নয়নমুখী বাজেট। বাজেটে সড়কও ড্রেনের ব্যবস্থাপনার উন্নয়ন জলবদ্ধতা নিরাশন বর্জ্য ব্যবস্থাপনার উন্নয়ন নাগরিক সেবা সম্প্রসারণ ডেঙ্গু মোকাবেলার মশক নিধন অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন ধর্মীয় উপাসনালয় পার্ক বিভিন্ন শিক্ষার প্রতিষ্ঠান রাস্তাঘাট উন্নয়ন কেসিসির বিভিন্ন দপ্তর আধুনিক প্রযুক্তির আওতায় আনা ও জবাবদিহিতা বৃদ্ধি এবং দ্বারা স্বাস্থ্য সেবা উন্নয়ন বিশেষ গুরুত্ব পেয়েছে।

এ সময় সিটি মেয়র বলেন কেসিসি একটি সেবামূলক প্রতিষ্ঠান। এটি কেবল সরকারি বা বিদেশি সাহায্য ঋণের উপর নির্ভরশীল থাকতে পারেনা। কেসিসিতে নিজস্ব আয়ের ওপর নির্ভর করে নিজের পায়ে দাঁড়াতে হবে। কেসিসি নিজস্ব সংস্থাপনা ব্যয় মিটিয়ে এবং ব্যয় সংকোচন করে রাজস্ব তহবিল হতে নগরীর বিভিন্ন উন্নয়নমূলক খাতে মোট ৬১ কোটি ২৪ লাখ ৫০ হাজার টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। এবং প্রস্তাবিত বাজেটে রাজস্ব খাত থেকে উন্নয়নের খাতে বরাদ্দ রাখা হয়েছে ৪৭ কোটি ৫০ লাখ টাকা।

তাছাড়া অবকাঠামো ও রাস্তাঘাট উন্নয়নের সাথে সাথে রক্ষণাবেক্ষণের জন্য রাজস্ব তহবিল থেকে বরাদ্দ রাখা হয়েছে ১৪ কোটি ২৪ লাখ টাকা। মানব বর্জ্য ব্যবস্থাপনার ওপর উন্নয়ন এবং মশক নিধনের জন্য কনজারভেন্সি খাতে ১৭ কোটি ৪০ লাখ টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। এবং বাজেটে এডিপির জন্য খোদ বরাদ্দ রাখা হয়েছে ৬০ কোটি টাকা। উক্ত বরাদ্দ হতে পূর্ত খাতে ২৯ কোটি ৪০ লাখ টাকা নগরীতে বিশুদ্ধ পানি সরবরাহের দায়িত্ব খুলনা ওয়াসার হলেও বিশেষ প্রয়োজনে জরুরি পানির চাহিদা মেটানোর জন্য গভীর ও গভীর নলকূপ সাবমার্সিবল পাম্পের রূপান্তর করার জন্য এ খাতে ৭০ লাখ টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। তাছাড়া ভেটেনারি খাতে ৫০ লাখ টাকা জনসাস্থ্য খাতে ৯ কোটি ৯৭ লাখ টাকা ড্রেনেজ খাতে ১৯ কোটি ৪৩ লাখ টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

সিটি মেয়র আরো জানান বর্তমানে সিটি কর্পোরেশন এলাকায় বিভিন্ন উন্নয়ন সহযোগী সংস্থার ১৯ টি উন্নয়ন প্রকল্প চলমান রয়েছে। এসব প্রকল্পে ২০২৩-২০২৪ অর্থবছরের ১৮৮ কোটি ৪৬ লাখ ৬৭ হাজার টাকা উন্নয়ন সহায়তা পাওয়ার আশা করা যায়। জাতীয় এডিপিভুক্ত তিনটি প্রকল্পে ৪৯৬ কোটি ৬০ লাখ টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।এছাড়া অনুমোদনের অপেক্ষায় থাকা খুলনা সিটি কর্পোরেশনের অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের সম্ভাব্য এক হাজার পাঁচশো কোটি টাকা বরাদ্দ পাওয়া যেতে পারে। বাজেট অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন কেসিসির বাজেট প্রস্তুত ও পরিচালনা কমিটির আহবায়ক মোঃ আলী আকবর টিপু কেসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা যুগ্ম সচিব লস্কর তাজুল ইসলাম পরিচালনা অনুষ্ঠানে কেসিসির প্যানেল মেয়র কাউন্সিলর সুশীল সমাজের প্রতিনিধি ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ সরকারি কর্মকর্তা কেসিসির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং গণমাধ্যমের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

আরও খবর...