1. smborhan.elite@gmail.com : Borhan Uddin : Borhan Uddin
  2. arroy2103777@gmail.com : Amrito Roy : Amrito Roy
  3. news.rifan@gmail.com : admin :
  4. holysiamsrabon@gmail.com : Siam Srabon : Siam Srabon
  5. srhafiz83@gmail.com : Hafizur Rahman : Hafizur Rahman
  6. elmaali61@gmail.com : Elma Ali : Elma Ali
শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ০২:৪৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
রোড এক্সিডেন্টে আবারো ঝরে পড়ল তরতাজা একটি প্রাণ কনস্টেবল নিয়োগে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগে সাবেক এসপিসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে আদালতে দুদকের চার্জশিট দাখিল শেখ হাসিনা হচ্ছেন উন্নয়নের জাদুকর – শ ম রেজাউল করিম এমপি বাগমারায় অনলাইন জুয়ার কালো থাবায় নিঃস্ব হচ্ছে তরুণ-যুব সমাজ পঞ্চগড়ে কৃষি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে টাকা আত্মসাৎ দুদকের অভিযান নড়াইলে সাংবাদিকের পরিবারের উপর হামলা ও প্রান নাশের হুমকির অভিযোগ ঘণ্টাখানেকের বৃষ্টিতেই ডুবে যায় রাজধানী নবীনগর থানা প্রেসক্লাবের ত্রিবার্ষিক কমিটি গঠন সভাপতি জসিম সম্পাদক রুবেল কালকিনিতে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে নিহত-১ আহত-৫ স্থানীয় মুদ্রার ব্যবহার বাড়াতে সম্মত বাংলাদেশ-চীন
বিশেষ ঘোষণা :
সারাদেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহীরা শীঘ্রই 09602111973 অথবা 01819-242905 নাম্বারে যোগাযোগ করুন।

শিক্ষকের সাথে দুর্ব্যবহার অঙ্গীকার নামা দিয়ে মাফ

  • সর্বশেষ পরিমার্জন: রবিবার, ২৮ মে, ২০২৩
  • ১৬২ বার পঠিত

অমৃত রায়, জবি প্রতিনিধি: জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষের ‘সি’ ইউনিটের পরীক্ষায় কেন্দ্রে প্রবেশের সময় মূল ফটকে দায়িত্বরত শিক্ষক দীন ইসলাম এর সাথে অসদাচরণ করে আদশাদ আজম নামের এক শিক্ষার্থী।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠু ও সুন্দর এবং আনন্দের সাথে সম্পন্ন করতে সকলের একাত্ম চেষ্টা অব্যাহত থাকে। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রবেশের ফটকগুলোতে স্বেচ্ছাসেবক বিএনসিসি, স্কাউট, গার্লস গাইড এর শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি উপস্থিত থাকেন সাংবদিক, শিক্ষক ও প্রক্টোরিয়াল বডির সদস্যরাও।

মোবাইল ফোন বা ইলেকট্রনিক ডিভাইস নিয়ে প্রবেশে বাঁধা দেওয়া হয় গেইটেই। পাশাপাশি কোনো চিরকুট, বই বা সীট সঙ্গে না নেওয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়। এসময়ে সবচেয়ে বেশী অবদান রাখেন শিক্ষক ও প্রক্টোরিয়াল বডির সদস্যরা।

‘সি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় ২৭ মে ২০২৩ জবি কেন্দ্রের মূল ফটকে প্রবেশ করার সময় চেকিং কালে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক দীন ইসলাম স্যারের সাথে অসদাচরণ করে ভর্তিচ্ছু এক শিক্ষার্থী। পরীক্ষার আগে তাকে কিছু না বলে পরবর্তীতে প্রক্টর অফিসে আসতে বলা হয়। তখন তাকে অঙ্গীকার নামা দিয়ে মাফ চাইতে বলা হয়।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল বলেন, “বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকের সাতে এমন আচরণ করায় আমরা ঐ ছেলের বাবার সাথে কথা বলি। এমন আর কখনো না করতে অঙ্গীকার নামা নেওয়া হয়।” বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে আসা শিক্ষার্থীদের এমন আচরণ মুটেও সহনীয় হয়। সকলের সতর্কতা আবশ্যক।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

আরও খবর...

আপনি কি লেখা পাঠাতে চান?

সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহীরা শীঘ্রই 09602111973 অথবা 01819-242905 নাম্বারে যোগাযোগ করুন...

X