1. news.rifan@gmail.com : admin :
  2. smborhan.elite@gmail.com : Borhan Uddin : Borhan Uddin
  3. arroy2103777@gmail.com : Amrito Roy : Amrito Roy
  4. mdmohaiminul77@gmail.com : Md Mohaiminul : Md Mohaiminul
  5. ripon11vai@gmail.com : Ripon : Ripon
  6. holysiamsrabon@gmail.com : Siam Srabon : Siam Srabon
শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৩:৫০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতা দেশের উন্নয়নে ভূমিকা রাখে : নসরুল হামিদ মানুষের হাতে প্রয়োজনের তুলনায় বেশি টাকা রয়েছে: বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী ৫ বছরে সরকারি চাকরি পেয়েছেন কতজন, জানালেন জনপ্রশাসনমন্ত্রী নির্দেশনা না মানলে কঠোর শাস্তির হুঁশিয়ারি স্বাস্থ্যমন্ত্রীর ‘বিএনপির আটক কর্মীদের মুক্তির সঙ্গে নির্বাচনের সম্পর্ক নেই’ বিদ্যুৎ ও জ্বালানির দাম বৃদ্ধি সরকারের একটি অমানবিক খেলা: রিজভী একা একা লাগে মাহিয়া মাহির রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখবে সরকার: কাদের চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য টগরকে নাগরিক সংবর্ধনা ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে ৩৩টি গাঁজাগাছ সহ নারী গ্রেপ্তার




১৩ জিম্মিকে মুক্তি দিয়েছে হামাস

  • সর্বশেষ পরিমার্জন: শনিবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২৩
  • ৩৮ বার পঠিত
সংগৃহীত ছবি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: যুদ্ধবিরতির চুক্তি অনুযায়ী ১২ জন থাই নাগরিককে মুক্তি দিয়েছে হামাস। শুক্রবার (২৪ নভেম্বর) স্থানীয় সময় বিকাল ৪টায় তাদের মুক্তি দেয়া হয়। থাই প্রধানমন্ত্রী স্রেথা থাভিসিন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে স্রেথা থাভিসিন বলেছেন, ‘নিরাপত্তা বিভাগ ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নিশ্চিত করেছে ১২ থাই জিম্মিকে ইতিমধ্যে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। কয়েক ঘণ্টার মধ্যে দূতাবাসের কর্মকর্তারা তাদের বরণ করে নেবে। কর্মকর্তাদের তাদের নাম এবং বিস্তারিত জানতে হবে। দয়া করে সঙ্গে থাকুন।’

শুক্রবার (২৪ নভেম্বর) দেশটির স্থানীয় সময় সকাল ৭টায় (বাংলাদেশি সময় বেলা ১১টা) গাজায় যুদ্ধবিরতি শুরু হয়। এর ৯ ঘণ্টা পর স্থানীয় সময় বিকাল ৪টায় (বাংলাদেশি সময় রাত ৮টা) হামাস থাই নাগরিকদের মুক্ত করে দেয়।
এর আগে বৃহস্পতিবার (২৩ নভেম্বর) মধ্যস্থতাকারী দেশ হিসেবে যুদ্ধবিরতি শুরুর সময় জানিয়েছিল কাতার। দোহায় কাতারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মাজেদ আল-আনসারি সংবাদ সম্মেলনে বলেন,

শুক্রবার সকাল ৭টা থেকে যুদ্ধবিরতি শুরু হবে। ১৩ জন জিম্মি এদিন সন্ধ্যায় মুক্তি পাবেন। এই সময়ের মধ্যে জিম্মিদের মধ্যে যারা একই পরিবারের তাদের একত্রিত করা হবে।

এছাড়া চার দিনের মধ্যে ৫০ জন জিম্মিকে মুক্তি দেয়ার যে চুক্তি হয়েছে, সে অনুযায়ী প্রতিদিন নতুন করে আরও বেসামরিক জিম্মিকে যুক্ত করা হবে। তবে নিরাপত্তার কারণে গাজা থেকে বন্দীদের কোন পথে নিয়ে যাওয়া হবে, সে বিষয়ে কোনো তথ্য প্রকাশ করা হয়নি।

কাতারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাংবাদিকদের বলেছেন, আমাদের মূল লক্ষ্য জিম্মিদের নিরাপত্তা। আমাদের অপারেশন রুমের মাধ্যমে তারা যাতে নিরাপদে সেখানে পৌঁছান তা নিশ্চিত করার দিকে আমরা মনোযোগ দেব। জিম্মিদের গাজা থেকে মুক্তির বিষয়টিতে যুক্ত থাকবে রেডক্রস ও যুদ্ধের অন্য পক্ষগুলো।

 

 

n/v



সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

আরও খবর...