1. news.rifan@gmail.com : admin :
  2. smborhan.elite@gmail.com : Borhan Uddin : Borhan Uddin
  3. arroy2103777@gmail.com : Amrito Roy : Amrito Roy
  4. hmgkrnoor@gmail.com : Golam Kibriya : Golam Kibriya
  5. mdmohaiminul77@gmail.com : Md Mohaiminul : Md Mohaiminul
  6. ripon11vai@gmail.com : Ripon : Ripon
  7. holysiamsrabon@gmail.com : Siam Srabon : Siam Srabon
বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১১:৪৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :




সন্তানকে শ্বাসরোধের পর ‘আমি হত্যা করিনি বলে চিৎকার’ বাবার

  • সর্বশেষ পরিমার্জন: শনিবার, ১৩ মে, ২০২৩
  • ১৯১ বার পঠিত

নীলফামারী: নীলফামারী সদর উপজেলায় সন্তানকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ উঠেছে জাকারিয়া শেখ (৫৩) নামে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ঘাতক বাবাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শনিবার (১৩ মে) ভোরে উপজেলার দক্ষিণ হাড়োয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। গ্রেফতার জাকারিয়া শেখ চড়াইখোলা পশ্চিম কুচিয়ার মোড় শেখপাড়া এলাকার মৃত ওমর আলী শেখের ছেলে। তিনি উত্তর সোনাখুলি কামিল মাদরাসা শিক্ষকতা (প্রভাষক) করতেন।

পুলিশ জানায়, আট বছর আগে জাকারিয়া ইসলামের সঙ্গে বিয়ে হয় তার দ্বিতীয় স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মমতার। চার মাস আগে ইয়াহিয়া শেখ আপন নামে একটি ছেলে সন্তান হয় তাদের। বিয়ের কিছুদিন পর কাজী মারা যাওয়ায় সে সময় কাবিননামা তোলা হয়নি তাদের। গত কয়েকদিন ধরে সন্তানের ভবিষ্যতের কথা ভেবে কাবিননামার জন্য স্বামী জাকারিয়াকে চাপ দেন আয়েশা। তবে এ সন্তান তার নয় বলে অস্বীকার করেন জাকারিয়া। এ নিয়ে পারিবারিক কলোহ ছিল তাদের।

শনিবার ভোরে চার মাসের ওই সন্তানকে শ্বাসরোধে হত্যা করেন জাকারিয়া। হত্যার পর ভয়ে আমি হত্যা করিনি বলে চিৎকার করলে টের পান আয়েশা সিদ্দিকা। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে জাকারিয়াকে গ্রেফতার করে।

জাকারিয়ার স্ত্রী আশেয়া সিদ্দিকা মমতা বলেন, ‘তার তো আরও একটা সংসার আছে। কাজী মারা যাওয়ায় কাবিননামা নাই। উনার যদি কিছু হয় তাহলে আমার সন্তানের কী হবে ভেবে কাবিন চাইলাম। কিন্তু সেই কাবিনের জন্য তিনি আমার বাচ্চাটাকে মেরে ফেলবে। কাবিন চাওয়ায় আমার কাল হলো। আমি উনার বিচার চাই।’

এ বিষয়ে নীলফামারী অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আমিরুল ইসলাম বলেন, দ্বিতীয় বিয়ের দীর্ঘদিন পর সন্তান হওয়ায় অস্বীকার ও স্বীকৃতি দেওয়া নিয়ে পারিবারিক ঝামেলা ছিল। গতরাতে চার মাসের শিশুকে হত্যা করেন জাকারিয়া। ঘটনার পরপরই আমরা তাকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হই। শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় আইনি ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

 

নাগরিক ভাবনা/এইচএসএস



সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

আরও খবর...