1. news.rifan@gmail.com : admin :
  2. smborhan.elite@gmail.com : Borhan Uddin : Borhan Uddin
  3. arroy2103777@gmail.com : Amrito Roy : Amrito Roy
  4. mdmohaiminul77@gmail.com : Md Mohaiminul : Md Mohaiminul
  5. ripon11vai@gmail.com : Ripon : Ripon
  6. holysiamsrabon@gmail.com : Siam Srabon : Siam Srabon
মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৩:০৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
‘আমাকে বাবা ডাকবে কে?’ ৩ মেয়েকে হারানো ফিলিস্তিনি বাবার কান্না নিরাপদ ও পরিবেশবান্ধব শিল্পকারখানা গড়ে তুলতে হবে : রাষ্ট্রপতি এক সেঞ্চুরিতে প্রায় কোটি রুপির গাড়ি উপহার পেলেন বাবর হারিয়ে যাচ্ছে আবহমান বাঙালির গ্রামীণ ঐতিহ্য ঢেঁকি শিল্প দুর্নীতি করলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না- মেয়র শেখ আ. রহমান মাদারীপুরে শিক্ষাসফরের বাসে শিক্ষার্থীদের সাথে মদ পানের ঘটনায় দুই শিক্ষক সাময়িক বরখাস্ত পাকিস্তানে পার্লামেন্ট অধিবেশন আহ্বান, যা বলল পিটিআই এবার ঐশ্বরিয়াকন্যা আরাধ্যার স্বভাব নিয়ে মুখ খুললেন নব্যা পাকিস্তানে প্রেসিডেন্টের বিরোধিতা সত্ত্বেও পার্লামেন্ট অধিবেশন আহ্বান ফের বাড়ছে বিদ্যুতের দাম, ইউনিটপ্রতি সর্বোচ্চ ৭০ পয়সা




সতন্ত্রের ব্যানারে বিএনপি ৫টিতে ও নৌকা ৩টিতে জয়।

  • সর্বশেষ পরিমার্জন: শুক্রবার, ১৭ মার্চ, ২০২৩
  • ১৩৭ বার পঠিত
সিলেট সদরের ৩টি ও ফেঞ্চুগঞ্জের ৫টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। নির্বাচনে ৫টিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে বিএনপি নেতা ও তিনটিতে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী নির্বাচিত হয়েছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮টা থেকে বিকেল পর্যন্ত ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। ভোটগ্রহণকে কেন্দ্র করে কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। তবে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট দিতে গিয়ে দিনভর ভোগান্তি পোহাতে হয় ভোটারদের। দীর্ঘ সময় লাইনে দাঁড়িয়ে ভোটাররা ভোট প্রদান করেন।
রিটার্নিং কর্মকর্তাদের ঘোষিত ফলাফল পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, সিলেট সদরের ৩টিতেই হেরেছে নৌকা। এই উপজেলার খাদিমনগর ইউনিয়নে তৃতীয়বারের মতো চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন বিএনপি নেতা মো: দিলোয়ার হোসেন। তার প্রাপ্ত ভোট ১২ হাজার ৪৫৯ । তার নিকটতম একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ইকলাল আহমদ পেয়েছেন ১১ হাজার ৫৪৬ ভোট।
টুকেরবাজার ইউনিয়নে আনারস প্রতীক নিয়ে চমক দেখিয়েছেন নির্বাচনে প্রথমবারের মতো চেয়ারম্যান পদে অংশগ্রহণকারী বিএনপি নেতা সফিকুর রহমান সফিক। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে তার প্রাপ্ত ভোট ৭ হাজার ১শ ৭৬ ভোট । তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী রাজু গোয়ালা পেয়েছেন ৪ হাজার ৩শ ৮ ভোট। এই ইউনিয়নে অপর চেয়ারম্যান প্রার্থী রফিক আহমদ চশমা প্রতীক নিয়ে ভোট পেয়েছেন ৮শ৭৮ ভোট।
খাদিমপাড়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ঘোড়া প্রতীক নিয়ে নির্বাচিত হয়েছেন বদরুল ইসলাম আজাদ। তিনিও বিএনপি নেতা। তার প্রাপ্ত ভোট সংখ্যা ৭হাজার ৩শ ৫১। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র পদপ্রার্থী মো. ছইদুর রহমান এনাম পান (আনারস) ৪ হাজার ৩শ ৯৩ ভোট। অন্য প্রার্থীদের মধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী নজরুল ইসলাম বেলাল পান ৩ হাজার ৬৯টি, স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মো. আব্দুল কাদির (মোটরসাইকেল) প্রতীক নিয়ে পান ১ হাজার ৭শ ৩১ ভোট, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর মনোনীত প্রার্থী মো. রফিকুল ইসলাম (হাতপাখা) ৯২১ ভোট, জাতীয় পার্টি- জেপি মনোনীত প্রার্থী ইফতেখার আহমদ লিমন (বাইসাইকেলে) ৩২৫ ভোট, স্বতন্ত্র পদপ্রার্থী মোহাম্মদ আবু সাইদ (অটোরিকশা) ১৭৯ ভোট ও স্বতন্ত্র পদপ্রার্থী মো. মহিব উদ্দিন (চশমা) ১৩৮ ভোট পান।
গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে রিটার্নিং কর্মকর্তা মো: ফরহাদ হোসেন নির্বাচিতদের নাম ঘোষণা করেন।
ফেঞ্চুগঞ্জ থেকে তাজুল ইসলাম বাবুল জানান, উপজেলার ৫টি ইউনিয়নে ইউপি নির্বাচনে ২৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। নির্বাচনে ফেঞ্চুগঞ্জ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছেন নৌকা প্রতীকের মোঃ তৈয়ফুর রহমান শাহীন। প্রাপ্ত ভোট ৬৪৩৬ ভোট। নিকটবর্তী প্রতিদ্বন্দ্বী ইকবাল হোসেন খান স্বতন্ত্র। প্রাপ্ত ভোট ৩৯৭৬। মাইজগাও ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকে বিজয়ী আওয়ামী লীগের জুবেদ আহমেদ চৌধুরী শিপু। প্রাপ্ত ভোট ৩৯০৮। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ইমরান আহমেদ চৌধুরী। প্রাপ্ত ভোট ৩২৭৫। ঘিলাছড়া ইউনিয়নে বিজয়ী নৌকা প্রতীকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সাইফুল ইসলাম মনা। প্রাপ্ত ভোট ৪০২২ নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রুকুনুজ্জামান চৌধুরীর প্রাপ্ত ভোট ২৯৩৯।
উত্তর কুশিয়ারা ইউনিয়নে আনারস প্রতীকে স্বতন্ত্র প্রার্থী আহমেদ জিলু বিজয়ী হয়েছেন। প্রাপ্ত ভোট ৪৮৭৯। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী ফজলুর রহমান পেয়েছেন ২৬৩৮ জন। উত্তর ফেঞ্চুগঞ্জ ইউনিয়নের ঘোড়া প্রতীকে বিজয়ী হয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপি সমর্থক আবজাল হেসেন। তার প্রাপ্ত ভোট ৩৫৫৪। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী এমরান উদ্দীন পেয়েছেন ২৪৩৬।
এদিকে, শান্তিপূর্ণ এবং উৎসবমুখর পরিবেশে এসব ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রতিটি ভোট কেন্দ্র কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা ছিল। কিছু ভোট কেন্দ্রে আঙ্গুলের ফিংগার নিয়ে জটিলতা সৃষ্টি হয়। বিভিন্ন কেন্দ্র ঘুরে দেখা গেছে, ভোটার উপস্থিতি কোথাও কোথাও অনেক বেশি। বেলা বাড়ার সাথে সাথে ভোটার উপস্থিতি কমতে থাকে।
তিমির বনিক



সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

আরও খবর...