1. news.rifan@gmail.com : admin :
  2. smborhan.elite@gmail.com : Borhan Uddin : Borhan Uddin
  3. arroy2103777@gmail.com : Amrito Roy : Amrito Roy
  4. hmgkrnoor@gmail.com : Golam Kibriya : Golam Kibriya
  5. mdmohaiminul77@gmail.com : Md Mohaiminul : Md Mohaiminul
  6. ripon11vai@gmail.com : Ripon : Ripon
  7. holysiamsrabon@gmail.com : Siam Srabon : Siam Srabon
বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১১:২৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :




সংবাদ প্রকাশের পর ফতেপুর বাউসা উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রাক্তন শিক্ষার্থীর বেঞ্চ প্রদান

  • সর্বশেষ পরিমার্জন: বুধবার, ২০ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ৭৭ বার পঠিত

রবিউল ইসলাম: ঢাকা থেকে প্রকাশিত জাতীয় দৈনিক নাগরিক ভাবনা পত্রিকায় ফতেপুর বাউসা উচ্চ বিদ্যালয়ের বেহাল দশা, অবকাঠামো গত উন্নয়ন না থাকায় পাঠদানে বিঘ্ন শীর্ষক শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করা হয়। বুধবার (২৫ অক্টোবর) প্রকাশিত সংবাদটি সাড়া পড়ে বিভিন্ন মহলে। উক্ত সংবাদটি নজরে আসায় বিপ্লব হোসেন (জাকির) (৩২) নামের একজন প্রাক্তন শিক্ষার্থী ব্যাক্তিগত উপলব্ধি থেকে ওই প্রতিষ্ঠানে ৪০টি বেঞ্চ প্রদানের উদ্যোগ গ্রহন করেন। ওই প্রাক্তন শিক্ষার্থী ফতেপুর বাউসা উত্তর পাড়া গ্রামের জমির উদ্দিনের ছেলে। তিনি গত (১৬ ডিসেম্বর) উক্ত প্রতিষ্ঠানে ৩০টি বেঞ্চ প্রদান করেন।

জানা যায়, বিপ্লব হোসেন (জাকির) ফতেপুর বাউসা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ২০০৮ সালে এসএসসি পাস করেন। পরে তিনি অর্থনীতি বিষয়ে বিএসএস অর্নাস এবং এমএসএস পাশ করে ব্যাবসা শুরু করেন। এর পর তিনি রাজধানীর শ্যামলী এলাকায় বি এই আর লজিস্টিক এন্ড

বি এইচ আর ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল নামের একটি ব্যাবসায়িক প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করেন। এছাড়াও তিনি ফতেপুর বাউসা উত্তর পাড়া জামে মজজিদের নির্মাণ কমিটির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে তিনি বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং গ্রামের অসহায় অবহেলিত মানুষের পাশে দাড়িয়ে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন। ইতিমধ্যে জাকির নির্মানাধীন মসজিদটিতে ব্যাক্তিগত অর্থায়নে সাড়ে ৩ লক্ষ টাকা দান করেছেন।

এ বিষয়ে বিপ্লব হোসেন গুরুত্বপূর্ণ এ সংবাদ প্রকাশের জন্য দৈনিক নাগরিক ভাবনা পত্রিকার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, আমি গত ২৬ শে অক্টোবর দৈনিক নাগরিক ভাবনা পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের মাধ্যমে জানতে পারি ফতেপুর বাউসা উচ্চ বিদ্যালয়ের নানান সমস্যার কথা। তার পর আমি অত্র প্রতিষ্ঠানের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক নরুল ইসলাম স্যারকে কল করে জানতে পারি প্রকাশিত সংবাদটির সত্যতা রয়েছে। এ সময় ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক নুরুল ইসলাম ৪০টি বেঞ্চ সংকটের কথা জানায়। তারপর আমি অত্র স্কুলটির প্রাক্তন ছাত্র হিসাবে আমার ব্যক্তিগত অর্থায়নে ৪০টি বেঞ্চর দেওয়ার অঙ্গিকার করি। গত ১৬ ডিসেম্বর ৩০টি বেঞ্চ প্রদান করেছি। পরবর্তীতে অন্যান্য সমস্যাগুলো পর্যায়ক্রমিক ভাবে সমাধান করবো বলে আশ্বাস দিয়েছি। আমি চায় আমরা সবাই যদি নিঃস্বার্থ ভাবে এগিয়ে আসি তাহলে আমার গ্রামের ছেলেমেয়েরা ভালোভাবে লিখাপড়া করে মানুষের মতো মানুষ হবে। গরীব দুঃখী মানুষের পাশে দাঁড়াবে। কারণ শিক্ষা হলো সেই আন্দোলন যা মানুষকে অন্ধকার থেকে আলোর দিকে নিয়ে যায়।

দুর্দিনে পাশে দাড়ানোর এ উদ্যোগের জন্য ফতেপুর বাউসা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক মন্ডলীরা ওই প্রতিষ্ঠানের সাবেক ছাত্রের ভূয়সী প্রশংসা করেন। এছাড়াও নতুন বেঞ্চ পেয়ে প্রতিষ্ঠানটির সকল শ্রনীর শিক্ষার্থীরা খুঁশী।

বেঞ্চ প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন, ফতেপুর বাউসা উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক নূরুল ইসলাম, বিপ্লব হোসেনের পিতা জমির উদ্দিন, প্রতিষ্ঠানটির ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক নুরুল ইসলাম ও শিক্ষক মন্ডলী এবং ছাত্র-ছাত্রী বৃন্দ।

 

 



সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

আরও খবর...