1. news.rifan@gmail.com : admin :
  2. smborhan.elite@gmail.com : Borhan Uddin : Borhan Uddin
  3. arroy2103777@gmail.com : Amrito Roy : Amrito Roy
  4. mdmohaiminul77@gmail.com : Md Mohaiminul : Md Mohaiminul
  5. ripon11vai@gmail.com : Ripon : Ripon
  6. holysiamsrabon@gmail.com : Siam Srabon : Siam Srabon
সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ০৬:২৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
বাংলাদেশে ৫০ হাজার টন পেঁয়াজ রপ্তানির অনুমতি দিল ভারত কালীগঞ্জ পৌরসভায় নবনির্বাচিত এমপিকে সংবর্ধনা হোমনায় ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ ও কৃতি শিক্ষার্থীর সংবর্ধনা শরণখোলায়  সাংবাদিক পরিচয়ে প্রতিবেশীদের হয়রানীর অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন মাদারীপুরে বাসের ধাক্কায় চলন্ত মোটরসাইকেলে আগুন, নিহত-১ দেশসেরা ক্যাডেট ইনসেন্টিভ এওয়ার্ড পেলেন কুবি বিএনসিসির সিইউও সাদী  বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন উপাচার্য অধ্যাপক ড. বদরুজ্জামান ভূঁইয়া  রমজানে কোনো পণ্যের দাম বাড়বে না: বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদনগরে নব-নির্বাচিত দুই সংসদ সদস্যকে সংবর্ধনা মৃত্যুর পূর্বপর্যন্ত গরীবের পাসেই থাকবো: মুর্শিদ




লক্ষ্মীপুরে পারিবারিক কলহের জেরে বসত ঘরে আগুন, নিহত ২

  • সর্বশেষ পরিমার্জন: মঙ্গলবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২৩
  • ৩৬ বার পঠিত

মাহাবুব হোসেন (র‌নি),লক্ষ্মীপুর প্রতি‌নি‌ধি: লক্ষ্মীপুরে মাদক সেবন ও মাদক ব্যবসায় বাধা দেয়ায় ঘরে পেট্রোল ঢেলে আগুনে জ্বলসে দিয়েছে স্ত্রী ও দুই সন্তানকে। এসময় ঘটনাস্থলে আগুনে পুড়ে মারা গেছে ওই পাষন্ডের সাত বছর বয়সী মেয়ে আয়েশা আক্তার। পরে অগ্নিদগ্ধ ছেলে আবদুর রহমান ও স্ত্রী সুমাইয়া আক্তারকে ঢাকা বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। দুপুরে ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় ছেলে আবদুর রহমান মারা যায়।

এদিকে চিকিৎসকরা বলছেন, সুমাইয়া আক্তার অগ্নিদগ্ধ। তাঁর শরীরের প্রায় ৫০ ভাগ পুড়ে গেছে। এঘটনায় অভিযুক্ত কামাল হোসেনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার ভোররাতে সদর উপজেলার বশিকপুর ইউনিয়নের পুরান চতইল্লার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

কামাল হোসেন লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার বশিকপুর ইউনিয়নের পুরান চতইল্লার বাড়ির আমিন উল্ল্যাহর ছেলে। পেশায় তিনি একজন অটোরিক্সা চালক।

নিহত আয়েশা আক্তার ও আবদুর রহমান কামাল হোসেনের সন্তান এবং আহত সুমাইয়া আক্তার কামালের স্ত্রী।

স্থানীয় বাসিন্দা মাহফুজ আলম, সিএনজি চালক মানিক হোসেনসহ একাধিক ব্যক্তি জানান, কামাল মাদকসহ কয়েকবার পুলিশের হাতে আটক হয়েছে। মাদক সেবন ও ব্যবসা নিয়ে পারিবারিকভাবে স্ত্রীর সাথে বাকবিতন্ডা প্রায়ই চলতো। ঘটনার সময় তারা শোরচিৎকার শুনে ঘটনাস্থলে আগুন নেভাতে আসেন। পরে তাদের কাছে কামাল দাবি করেন, পেট্রোল দিয়ে তিনি নিজেই আগুন দিয়েছেন। এসময় পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার ও আহতদের উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় বার্ণ ইউনিট হাসপাতালে পাঠান।

আহত কামালের স্ত্রী সুমাইয়ার স্বজনরা জানান, সুমাইয়া বশিকপুর ডিএসইউ কামিল মাদ্রাসার দপ্তরী পদে এ বছর চাকুরি পান। কামাল নেশা ও মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত দাবি করে তারা বলেন, এ অগ্নিকান্ড এ কারণেই ঘটেছে।

চন্দ্রগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) তৌহিদুর রহমান বলেন, পারিবারিক অশান্তির কারণে এ ঘটনা ঘটতে পারে। ঘাতক কামাল পুলিশ হেফাজতে রয়েছে। তদন্ত করে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান ওসি।



সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

আরও খবর...