1. news.rifan@gmail.com : admin :
  2. smborhan.elite@gmail.com : Borhan Uddin : Borhan Uddin
  3. arroy2103777@gmail.com : Amrito Roy : Amrito Roy
  4. hmgkrnoor@gmail.com : Golam Kibriya : Golam Kibriya
  5. mdmohaiminul77@gmail.com : Md Mohaiminul : Md Mohaiminul
  6. ripon11vai@gmail.com : Ripon : Ripon
  7. holysiamsrabon@gmail.com : Siam Srabon : Siam Srabon
শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:১৮ পূর্বাহ্ন




যশোরে প্রবাসীকে কুপিয়ে হত্যা, স্ত্রীর প্রেমিক ফারাবি গ্রেপ্তার

  • সর্বশেষ পরিমার্জন: রবিবার, ১৬ এপ্রিল, ২০২৩
  • ৯৭ বার পঠিত

জেমস রহিম রানা: যশোর সদর উপজেলার দেয়াড়া ইউনিয়নের চান্দুটিয়ায় বুকভরা বাঁওড় পাড়ে প্রবাসী সোহেল রানা খুনের প্রধান আসামি ফারাবি আটক হয়েছে।

শনিবার (১৫ এপ্রিল) রাতে খুলনা থেকে তাকে আটক করে কোতোয়ালি মডেল থানার এসআই মাইদুলের নেতৃত্বে একদল পুলিশ। পরে রাত ১২টার দিকে তার স্বীকারোক্তিতে হত্যায় ব্যবহৃত হাসুয়া উদ্ধার করা হয়।

ফারাবি আলমনগর গ্রামের ফজলুর রহমানের ছেলে। এর আগে পুলিশ নিহত সোহেলের স্ত্রী খুশি মিম ও ভাইপো জিসানকে আটক করে। নিহত সোহেল রানা হালসা গ্রামের আব্দুর রউফের ছেলে।

কোতোয়ালি মডেল থানার এসআই মাইদুল ইসলাম জানান, ফারাবিকে আটকে বেশ বেগ পেতে হয়েছে। বিভিন্ন স্থানে অভিযানও চালানো হয়। সর্বশেষ শনিবার রাতে ফারাবিকে খুলনা থেকে আটক করা হয়। পরে রাত ১২টার দিকে তাকে ঘটনাস্থলে নিয়ে যায় পুলিশ। এসময় ফারাবির স্বীকারোক্তিতে সোহেল খুনে ব্যবহৃত হাসুয়া উদ্ধার করা হয়। সেখানে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও এলাকাবাসী উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত. গত ১২ এপ্রিল সন্ধ্যায় চান্দুটিয়া-মঠবাড়ির বুকভরা বাঁওড় পাড়ে দুবাই প্রবাসী সোহেল রানাকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে খুন করা হয়। তিনি দ্বিতীয় রমজানে বাড়িতে বেড়াতে আসেন। ঘটনার সময় তিনি আপন ভাইপো জিসানের মোটরসাইকেলে করে আলমনগর গ্রামে শ্বশুর আব্দুল আলিমের বাড়িতে বেড়াতে যাচ্ছিলেন।

হত্যার ঘটনায় শুক্রবার নিহতের ভাই শাকিল খান বাদী হয়ে নিহতের স্ত্রী খুশি মিম, তার ভাতিজা জিয়াদুল ইসলাম জিসান ও খুশির পরকীয়া প্রেমিক ফারাবিকে আসামি করে মামলা করেন। মামলার পরে যশোর কোতোয়ালি থানা ও জেলা ডিবি পুলিশের সদস্যরা খুশি ও জিসানকে গ্রেপ্তার করে। পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ভাতিজা জিসান হত্যাকাণ্ডের বিষয়টি স্বীকার করেছে।

পুলিশ জানায়, সোহেল রানার সঙ্গে পারিবারিক বিরোধ ছিল জিসানের। ফলে গোপনে কাকি খুশি মিমের পরকীয়া প্রেমিক ফারাবির সাথে হাত মেলায় জিসান। ফারাবির সঙ্গে কাকির পরকীয়ার বিষয়টি সে আগে থেকেই জানতো। ফলে খুশি মিম, ফারাবি ও জিসান মিলে সোহেল রানাকে খুনের পরিকল্পনা করে। কৌশলে মিশন সফলও করে। কাকা সোহেল রানাকে শ্বশুর বাড়ি পৌঁছে দেয়ার জন্য মোটরসাইকেলে ওঠার আগে ফারাবিকে প্রস্তুত থাকতে বলে জিসান। আর পথের কাঁটা সরাতে সোহেল রানাকে খুনের পরিকল্পনায় সহায়তা করে খুশি মিম। সূত্র জানায়, সোহেল রানাকে খুনের পর ফারাবি আত্মগোপন করে। তাকে গ্রেপ্তার পুলিশ তৎপর ছিল।



সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

আরও খবর...