1. news.rifan@gmail.com : admin :
  2. smborhan.elite@gmail.com : Borhan Uddin : Borhan Uddin
  3. arroy2103777@gmail.com : Amrito Roy : Amrito Roy
  4. hmgkrnoor@gmail.com : Golam Kibriya : Golam Kibriya
  5. mdmohaiminul77@gmail.com : Md Mohaiminul : Md Mohaiminul
  6. ripon11vai@gmail.com : Ripon : Ripon
  7. holysiamsrabon@gmail.com : Siam Srabon : Siam Srabon
মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৩৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :




ফের গোয়েন্দা স্যাটেলাইট পাঠানোর হুঁশিয়ারি কিমের বোনের

  • সর্বশেষ পরিমার্জন: বৃহস্পতিবার, ১ জুন, ২০২৩
  • ১৬৪ বার পঠিত

উত্তর কোরিয়ার প্রথম গোয়েন্দা স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের প্রচেষ্টা ব্যর্থ হওয়ার পর দেশটি এই ধরনের আরও স্যাটেলাইট মহাকাশে পাঠানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উনের প্রভাবশালী বোন কিম ইয়ো জং একথা জানিয়েছেন।

তিনি কক্ষপথে সামরিক গোয়েন্দা স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের এবং সামরিক নজরদারি সক্ষমতা বাড়ানোর হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার (১ জুন) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মহাকাশে গোয়েন্দা স্যাটেলাইট পাঠানো নিয়ে বৃহস্পতিবার সংবাদ প্রকাশ করেছে উত্তর কোরিয়ার সরকারি সংবাদমাধ্যম দ্য কোরিয়ান সেন্ট্রাল নিউজ এজেন্সির (কেসিএনএ)।

সেখানে বলা হয়েছে, কিম জং উনের বোন কিম ইয়ো জং বলেছেন, তার দেশ শিগগিরই সামরিক গোয়েন্দা স্যাটেলাইট কক্ষপথে স্থাপন করবে। একইসঙ্গে পিয়ংইয়ং তার সামরিক নজরদারি সক্ষমতা বাড়াবে বলেও প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি।

কেসিএনএ’র প্রকাশিত ইংরেজি-ভাষায় দেওয়া এক বিবৃতিতে উত্তর কোরিয়ার প্রভাবশালী এই নারী বলেছেন, ‘এটা নিশ্চিত যে (উত্তর কোরিয়ার) সামরিক অনুসন্ধান স্যাটেলাইটটিকে অদূর ভবিষ্যতে সঠিকভাবে মহাকাশ কক্ষপথে স্থাপন করা হবে এবং এরপর এটি তার মিশন শুরু করবে।’

বুধবার উত্তর কোরিয়ার একটি স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের প্রচেষ্টা ব্যর্থ হওয়ার পর কিম ইয়ো জংয়ের এই মন্তব্য সামনে এলো।

এদিকে দক্ষিণ কোরিয়ার গোয়েন্দা সংস্থার উদ্ধৃতি দিয়ে বুধবার দক্ষিণ কোরিয়ার একজন আইনপ্রণেতা বলেছেন, যে সমস্যার কারণে রকেট উৎক্ষেপণ ব্যর্থতার মুখে পড়েছে তা সমাধান করতে কয়েক সপ্তাহ বা তারও বেশি সময় লেগে যেতে পারে।

কেসিএনএ জানিয়েছে, ‘মালিগিয়ং-১’ নামে পরিচিত সামরিক রিকনেসান্স স্যাটেলাইট বহনকারী চোল্লিমা-১ রকেটটি উৎক্ষেপণের পর দুর্ঘটনার শিকার হয়ে সমুদ্রে বিধ্বস্ত হয়। এই ঘটনা সামনে আনাকে উত্তর কোরিয়ার ব্যর্থতার বিরল স্বীকারোক্তি বলে মনে করা হচ্ছে।

দক্ষিণ কোরিয়ার সেনাবাহিনীও জানায়, উত্তর কোরিয়া যে রকেট উৎক্ষেপণ করেছে তা মাঝ আকাশেই ধ্বংস হয়ে গেছে এবং এটি উৎক্ষেপণের পরপরই রাডার থেকে হারিয়ে যায়।

এদিকে উত্তর কোরিয়া স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করার পর পার্শ্ববর্তী দুই দেশ জাপান এবং দক্ষিণ কোরিয়ায় আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছিল। বিশেষ করে বুধবার সকালে দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউলে এক ধরনের বিশৃঙ্খলা ও বিভ্রান্তি দেখা দেয়। সেখানকার মানুষের ঘুম ভাঙে বিমান হামলার সাইরেনের শব্দে এবং জরুরি সতর্কবার্তায়।

ওই সতর্কবার্তায় তাদেরকে নিরাপদ স্থানে সরে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত হতে বলা হয়েছিল। তবে ২০ মিনিট পর জানানো হয়, ভুল করে সাইরেন বাজানো হয়েছিল ও জরুরি বার্তা পাঠানো হয়েছিল।

অবশ্য উত্তর কোরিয়া আগেই জানিয়েছিল, যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক কার্যক্রমের ওপর নজর রাখতে ১১ জুনের মধ্যে তারা একটি স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করবে। তবে উৎক্ষেপণের প্রথম চেষ্টা ব্যর্থ হওয়ার পর দেশটি এখন বলছে, খুব শিগগিরই তারা দ্বিতীয় উৎক্ষেপণের প্রচেষ্টা চালাবে।



সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

আরও খবর...