1. news.rifan@gmail.com : admin :
  2. smborhan.elite@gmail.com : Borhan Uddin : Borhan Uddin
  3. arroy2103777@gmail.com : Amrito Roy : Amrito Roy
  4. hmgkrnoor@gmail.com : Golam Kibriya : Golam Kibriya
  5. mdmohaiminul77@gmail.com : Md Mohaiminul : Md Mohaiminul
  6. ripon11vai@gmail.com : Ripon : Ripon
  7. holysiamsrabon@gmail.com : Siam Srabon : Siam Srabon
শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:৩৭ পূর্বাহ্ন




পরিকল্পিত খুনের শিকার হয়েছেন যুবলীগ নেতা জামাল, আটক ৩

  • সর্বশেষ পরিমার্জন: রবিবার, ৭ মে, ২০২৩
  • ১৭১ বার পঠিত

দাউদকান্দি কুমিল্লা: অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. তানভীর মাহমুদ পাশা বলেছেন, আধিপত্য বিস্তার ও পূর্ব শত্রুতার জেরে কুমিল্লার তিতাসে পরিকল্পিত খুনের শিকার হয়েছেন যুবলীগ নেতা জামাল হোসেন। বোরকা পরে কমান্ডো স্টাইলে গুলি করে এই হত্যাকাণ্ড চালানোর এক সপ্তাহের মধ্যে এজাহারনামীয় ৩ আসামিকে ঢাকা ও চট্টগ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব। এসময় দুর্বৃত্তদের ব্যবহৃত ৩টি বোরকা জব্দ করা হয়েছে।

রোববার বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে র‌্যাব-১১, সিপিসি-২ এর কুমিল্লা কার্যালয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করে এসব তথ্য জানান তিনি।

কর্নেল মো. তানভীর মাহমুদ পাশা বলেন, হত্যাকাণ্ডের পর থেকে র‌্যাব-১১ এর একাধিক টিম ছায়া তদন্তে মাঠে নামে। র‌্যাব ঘটনাস্থলসহ আশপাশের বাড়িঘর ও স্থাপনার বেশ কিছু সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করে। র‌্যাবের গোয়েন্দা তথ্য এবং তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় শনিবার (৬ মে) দিনে-রাতে ঢাকার রায়েরবাগ এলাকা থেকে শাহিনুল ইসলাম ওরফে সোহেল শিকদার (৪০) ও মো. ইসমাইল (৩৬) এবং চট্টগ্রাম থেকে শাহ আলম ওরফে পা কাটা আলমকে (৩৬) গ্রেপ্তার করা হয়। এদের মধ্যে শাহিনুল ইসলাম ওরফে সোহেল শিকদার তিতাস উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান।

তিনি জানান, এ মামলার এজাহারনামীয় অপর ৬ আসামির মধ্যে সুজন ও আরিফ নেপালে, বাদল দুবাই, শাকিল ভারতে ও অলি হাসান সৌদি আরবে এবং কালা মনির অজ্ঞাত স্থানে পালিয়ে আছে।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তানভীর মাহমুদ পাশা বলেন, কিলিং মিশনে অংশ নেওয়া বোরকা পরা ৩ দুর্বৃত্তের পরিচয় অনেকটা নিশ্চিত হওয়া গেছে, তবে তদন্তের স্বার্থে তাদের নাম-পরিচয় এখনই বলা যাচ্ছে না। বিদেশে পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারের বিষয়ে ইন্টারপোলের সহায়তা নেওয়া হচ্ছে।

এর আগে ঘটনাস্থল ও আশেপাশের সিসিটিভি ফুটেজে বোরকা পরে দুর্বৃত্তদের কিলিং মিশনের দৃশ্য এবং ঘটনাস্থলে আসা ও পালিয়ে যাওয়ার দৃশ্যগুলো এলইডিতে সাংবাদিকদের দেখানো হয়। এসময় সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন র‌্যাব ১১, সিপিসি-২ এর কমান্ডার মেজর মোহাম্মদ সাকিব হোসেন।

তিনি জানান, মাদরাসা রোডে ঘাতকরা ঘটনাস্থলে আসলেও কিলিং মিশন শেষ করে অন্য রোডে পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থলের অদূরের একটি ঝোপের মধ্য থেকে দুর্বৃত্তদের ব্যবহার করা তিনটি বোরকা উদ্ধার করা হয়েছে। গ্রেপ্তারদের দাউদকান্দি মডেল থানায় হস্তান্তর করা হবে।

এদিকে দুপুরে দাউদকান্দি মডেল থানার ওসি আলমগীর হোসেন ভূঁইয়া জানান, হত্যাকাণ্ডে ঘাতকদের ব্যবহৃত গাড়ির চালককে আটক করা হয়েছে। এ নিয়ে অভিযান চলছে। এ বিষয়ে বিস্তারিত পরে জানানো হবে।

গত ৩০ এপ্রিল রাত সোয়া আটটার দিকে কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার গৌরীপুর পশ্চিম বাজারে তিতাস উপজেলার জিয়ারকান্দি গ্রামের বাসিন্দা জামাল হোসেনকে গুলি করে হত্যা করে বোরকা পরা তিন দুর্বৃত্ত। এ ঘটনায় ২ মে রাত সাড়ে ১১টায় দাউদকান্দি থানায় ৯ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা সাত থেকে আটজনের নামে নিহতের স্ত্রী পপি আক্তার মামলা দায়ের করেন। নিহত জামাল হোসেন তিতাস উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক ছিলেন।

নাগরিক ভাবনা/এইচএসএস 



সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

আরও খবর...