1. news.rifan@gmail.com : admin :
  2. smborhan.elite@gmail.com : Borhan Uddin : Borhan Uddin
  3. arroy2103777@gmail.com : Amrito Roy : Amrito Roy
  4. hmgkrnoor@gmail.com : Golam Kibriya : Golam Kibriya
  5. mdmohaiminul77@gmail.com : Md Mohaiminul : Md Mohaiminul
  6. ripon11vai@gmail.com : Ripon : Ripon
  7. holysiamsrabon@gmail.com : Siam Srabon : Siam Srabon
বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ০২:১৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
রাজারহাটে ১২ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা ফের আটক ধর্ষন মামলায় আ’লীগ নেতা মুহিবুর ছাত্রী-শিক্ষক গভীর প্রেম, অভিযুক্ত প্রভাষক ও সহযোগী পিয়ন বরখাস্ত ফেনীতে দখলদারদের কবলে পশু জবাইখানা,উদ্ধারে তৎপর পৌর মেয়র মন্ত্রী–এমপিদের সন্তান ও স্বজনদের মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহার না করার বিষয়ে আওয়ামী লীগের সিদ্ধান্ত ৩০ এপ্রিল যশোর মনিরামপুরে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মুনজুরুল আক্তারের উপর সন্ত্রাসী হামলা, থানায় অভিযোগ ছাগলনাইয়ায় বৃষ্টি প্রার্থনায় সালাতুল ইসতেস্কা আদায় ও বিশেষ মুনাজাত সোনাগাজীতে প্রবাসীর স্ত্রী থেকে চাঁদা আদায়ের অভিযোগ,ছাত্রলীগ নেতাকে শোকজ কুষ্টিয়া দৌলতপুরে অগ্নিকান্ডে ৮টি ঘর ভষ্মিভূত গরমে পোষা প্রাণীর যত্ন নেবেন যেভাবে




দুর্নীতিবাজ চেয়ারম্যান তোফাজ্জল হোসেনকে অপসারণের দাবি

  • সর্বশেষ পরিমার্জন: শনিবার, ১ এপ্রিল, ২০২৩
  • ৯০ বার পঠিত

গাজীপুরের শ্রীপুরে দুর্নীতি মাধ্যমে ভূয়া প্রকল্প দেখিয়ে ৫০ লাখ টাকা অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ তদন্ত প্রমাণিত হওয়ার পর keতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে বরমী ইউনিয়ন পরিষদের সাতজন ইউপি সদস্যসহ ইউনিয়ন পরিষদের কয়েক হাজার মানুষ। এসময় বিভিন্ন বয়সী মানুষ রাস্তার দু’পশে দাঁড়য়ে বিভিন্ন লেখা সম্বলিত ফেস্টুন ব্যানার হাতে বিক্ষোভ মিছিলে অংশ নেন।

শনিবার( ১ লাএপ্রিল ) সকালে শ্রীপুর উপজেলার বরমী ইউনিয়নের বরমী টু মাওনা আঞ্চলিক সড়কের সাতখামাইর বাজারে এ মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বরমী ইউনিয়ন পরিষদের ৪ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য সুমন আহমেদ তার বক্তব্যে বলেন, চেয়ারম্যানের দুর্নীতির বিষয়ে জানতে পেরে আমরা সাতজন ইউপি সদস্য চেয়ারম্যানের দুর্নীতির বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছি। এরপর থেকে চেয়ারম্যান আমাদেরকে বিভিন্ন ধরনের হুমকি ধামকি দিচ্ছে।

বরমী ইউনিয়ন পরিষদের ৮ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য মো. হারুন অর রশিদ খন্দকার বলেন, তদন্ত কমিটি ইতিমধ্যে ৫০ লাখ টাকা দুর্নীতি প্রমাণ পেয়েছে। আজ বরমীর জনগণ ফুঁসে ওঠেছে। বরমী ইউনিয়ন পরিষদের দুর্নীতিবাজ চেয়ারম্যান পদত্যাগ না করা পর্যন্ত আমরা জনসাধারণকে নিয়ে রাজপথে আন্দোলন চালিয়ে যাব।

উল্লেখ্য, গত বছরে বরমী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তোফাজ্জল হোসেনের ইউনিয়নের একটি মাত্র ওয়ার্ডে নামমাত্র ভুয়া প্রকল্প দেখিয়ে সরকারের পঞ্চাশ লাখ টাকা দুর্নীতি করে আত্মসাৎ করে। এরপর বিষয়টি গণমাধ্যমে প্রকাশ হওয়ার পর স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অধীনে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি ঘটন করে। তদন্ত কমিটি তদন্ত শেষে ৮৬ পৃষ্ঠার একটি তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয় স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট বিভাগে। তদন্ত প্রতিবেদনে চেয়ারম্যান দুর্নীতি প্রমাণ পেয়েছে মর্মে সুপারিশ করেছেন তদন্ত কমিটি। চেয়ারম্যানের দুর্নীতির বিষয়ে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পরপরই ইউনিয়ন পরিষদের সাতজন ইউপি সদস্য অনাস্থা দেয়।

 

n/v



সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

আরও খবর...