1. news.rifan@gmail.com : admin :
  2. smborhan.elite@gmail.com : Borhan Uddin : Borhan Uddin
  3. arroy2103777@gmail.com : Amrito Roy : Amrito Roy
  4. hmgkrnoor@gmail.com : Golam Kibriya : Golam Kibriya
  5. mdmohaiminul77@gmail.com : Md Mohaiminul : Md Mohaiminul
  6. ripon11vai@gmail.com : Ripon : Ripon
  7. holysiamsrabon@gmail.com : Siam Srabon : Siam Srabon
বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:১৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :




ক্রয়কৃত জমি দখল নিতে বাঁধা, হামলা সাইনবোর্ড ভাংচুরের অভিযোগ

  • সর্বশেষ পরিমার্জন: সোমবার, ৮ মে, ২০২৩
  • ১৪৪ বার পঠিত

সোনারগাঁও উপজেলা প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের মোগরাপাড়া ইউনিয়নের নারায়ণদিয়া এলাকায় ক্রয়কৃত জমি দখলের জন্য সাটানো সাইনবোর্ড ভেঙে ফেলার অভিযোগ উঠেছে কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে। জমিতে সাইনবোর্ড লাগনোর ঘন্টা খানেকের মাথায় দুটি তুলে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠে। এ ঘটনায় জমির মালিক আলমগীর হোসেন সোনারগাঁ থানায় বাদি হয়ে গত রোববার রাতে ৪ জনকে আসামী করে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

জানা যায়, উপজেলার মোগরাপাড়া ইউনিয়নের নারায়ণদিয়া চরসফিকা মৌজায় আর এস ৬ নং খতিয়ানের আব্দুল মালেক ৩ একর ১৪ শতাংশ মালিক থাকিয়া মৃত্যুবরণ করিলে ২ পুত্র, ২ কন্যা ও স্ত্রীকে ওয়ারিশ রাখিয়া গেলে এক পুত্র নুরুল ইসলাম ৭৮. ৫০ শতাংশ জমির মালিক হয়। এক কন্যা মাহেলা বেগম ৩৯. ২৫ শতাংশ মালিক হয়। তাদের বাবার ওয়ারিশ সূত্রে দুজন মিলে মোট ১ একর ১৭.৭৫ শতাংশ মালিক হন। এছাড়াও নূরুল ইসলাম ১৯৫৯ সালে ক্রয় সূত্রে দলিল মূলে ১২৯ শতাংশের মালিক হয়ে তাহার নামে আর এস রেকর্ডভূক্ত হন।

এদিকে নূরুল ইসলাম পৈত্রিক ওয়ারিশ সূত্রে ৭৮.৫০ শতাংশ ও রেকর্ডীয় দলিল মূলে ১২৯ শতাংশ মোট ২ একর ৭. ৫০ শতাংশ ও মাহেলা ৩৯. ২৫ শতাংশ সহ ২ একর ৪৬. ৭৫ শতাংশ জমি আম মোক্তার দলিল মূলে মালিক হয়ে আলমগীর গং ওই জমিতে সাইনবোর্ড সাঁটাতে গেলে প্রতিপক্ষ আলী আকবর, আশরাফ, আনিছুর রহমান খোকন ও মাহফুজ রহমান সাইনবোর্ড ভেঙে ফেলে প্রাণ নাশের হুমকি দেয়। এ ঘটনায় জমির মালিক আলমগীর হোসেন রোববার রাতে ৪ জনকে আসামি করে সোনারগাঁ থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযুক্ত আনিছুর রহমান খোকনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমার বাবা ক্রয়সূত্রে মালিক হয়ে ৪৭ বছর ধরে ভোগ দখলে আছেন। এ নিয়ে আদালতে একটি মামলা চলমান রয়েছে। মামলা নিষ্পত্তি হওয়ার আগেই আলমগীরের লোকজন সাইনবোর্ড সাঁটিয়েছে। আমরা সাইনবোর্ড সাঁটাতে বাধা দিয়েছি। কোন হত্যার হুমকি দেওয়া হয়নি।

সোনারগাঁও থানার পরিদর্শক তদন্ত মো. আহসান উল্লাহ বলেন, দুপক্ষেরঅভিযোগ গ্রহন করা হয়েছে। তদন্ত চলছে। উভয় পক্ষকেই তাদের জমির কাগজপত্র নিয়ে আসার জন্য বলা হয়েছে।



সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

আরও খবর...