1. news.rifan@gmail.com : admin :
  2. smborhan.elite@gmail.com : Borhan Uddin : Borhan Uddin
  3. arroy2103777@gmail.com : Amrito Roy : Amrito Roy
  4. mdmohaiminul77@gmail.com : Md Mohaiminul : Md Mohaiminul
  5. ripon11vai@gmail.com : Ripon : Ripon
  6. holysiamsrabon@gmail.com : Siam Srabon : Siam Srabon
শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৩:০৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতা দেশের উন্নয়নে ভূমিকা রাখে : নসরুল হামিদ মানুষের হাতে প্রয়োজনের তুলনায় বেশি টাকা রয়েছে: বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী ৫ বছরে সরকারি চাকরি পেয়েছেন কতজন, জানালেন জনপ্রশাসনমন্ত্রী নির্দেশনা না মানলে কঠোর শাস্তির হুঁশিয়ারি স্বাস্থ্যমন্ত্রীর ‘বিএনপির আটক কর্মীদের মুক্তির সঙ্গে নির্বাচনের সম্পর্ক নেই’ বিদ্যুৎ ও জ্বালানির দাম বৃদ্ধি সরকারের একটি অমানবিক খেলা: রিজভী একা একা লাগে মাহিয়া মাহির রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখবে সরকার: কাদের চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য টগরকে নাগরিক সংবর্ধনা ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে ৩৩টি গাঁজাগাছ সহ নারী গ্রেপ্তার




কৃষি সেচে নিরবচ্ছিন্ন জ্বালানি সরবরাহ নিশ্চিত করা হবে: জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী

  • সর্বশেষ পরিমার্জন: সোমবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ৫৪ বার পঠিত

অনলাইন ডেস্ক: কৃষি সেচের জন্য জ্বালানি তেলের নিরবচ্ছিন্ন সরবরাহ নিশ্চিত করা হবে বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।

গতকাল রোববার অনলাইনে এ সংক্রান্ত একটি আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘বিদ্যুৎ বা জ্বালানি তেলের জন্য কৃষিকাজের ব্যাঘাত ঘটানো যাবেনা। যথাযথ নিরাপত্তা নিশ্চিত করে জ্বালনি তেল সংশ্লিষ্ট জেলায় চাহিদা মতো পৌছানোর উদ্যোগ অব্যাহত রাখতে হবে।’

ডিসেম্বর থেকে মে মাসকে সাধারণত কৃষিসেচ মৌসুম হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

জ্বালানি মন্ত্রণালয় বলছে, বিগত ২০২২-২৩ অর্থবছরে কৃষিসেচ মোট ১৯ লাখ ২৯ হাজার ৭৩৮ মেট্রিকটন ডিজেল ব্যবহৃত হয়েছে।

এ সময়ে কৃষিসেচে ব্যবহার হওয়া জ্বালানির মধ্যে ৬৭ দশমিক ১৯ শতাংশ ছিল ডিজেল। এছাড়াও ১১ দশমিক ৯৯ শতাংশ ফার্নেস ওয়েল, ৬ দশমিক ৪২ শতাংশ জেডএ-১, ৬ দশমিক ১৯ শতাংশ পেট্রোল এবং ৫ দশমিক ৩৬ শতাংশ ছিল অকটেন। বিগত অর্থ বছরে ব্যবহৃত জ্বালানি তেলের সবচেয়ে বেশি ৫৮ শতাংশ ব্যবহার হয় পরিবহণ খাতে। এর বাইরে ১৮ ভাগ বিদ্যুতে, ১৫ ভাগ কৃষিতে, ৬ ভাগ শিল্পে, ১ ভাগ গৃহস্থালিতে এবং অন্যান্য খাতে ব্যবহার হয় ২ ভাগ।

নসরুল হামিদ বলেন, ‘চাহিদার সাথে সমন্বয় রেখে বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে হবে। বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের চাহিদা মোতাবেক প্রাকৃতিক গ্যাস ও ফার্নেস ওয়েল সরবরাহের আগাম উদ্যোগ নিতে হবে।’

আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় ডিজেল বাফার স্টক, তেল সরবরাহের জন্য ট্যাংক-ওয়াগন বা রেল র‍্যাক নিশ্চিতকরণ, নৌপথের নাব্যতা সংরক্ষণ, তেল পাচার রোধ ও নৌঘাট সংক্রান্ত রাস্তার সংস্কার, সীমান্তে তেল পাচার রোধ, জ্বালানি স্থাপনায় নিরাপত্তা নিশ্চিত করণসহ, মনিটরিং ও সমন্বয় নিয়ে আলোচনা হয়।

কৃষিসেচ মৌসুমে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে কৃষকদের কাছে সঠিক সময়ে সরকার নির্ধারিত মূল্যে বর্ধিত পরিমাণ ডিজেল সরবরাহ কার্যক্রম নিবিড়ভাবে মনিটর করতে গত ১ ডিসেম্বর থেকে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের (বিপিসি) প্রধান কার্যালয়ে কেন্দ্রীয় কন্ট্রোল সেল খোলা হয়েছে।

মন্ত্রণালয় বলছে, সেচ মৌসুম শেষ না হওয়া পর্যন্ত চট্টগ্রামে ডিজেলের মজুদ সার্বক্ষণিকভাবে ১ লাখ ৫০ হাজার মেট্রিক টন সংরক্ষণের চেষ্টা অব্যাহত থাকবে। চলতি ২০২৩-২৪ অর্থবছরে কৃষিসেচ মৌসুমে ডিজেলের প্রাক্কলিত চাহিদা ১২ লঅখ ৫০ হাজার ৩৫৫ মেট্রিকটন। একই সময় লুব অয়েলের প্রাক্কলিত চাহিদা ধরা হয়েছে ৪৪ হাজার ১২৩ মেট্রিকটন।

 

n/v



সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

আরও খবর...