1. news.rifan@gmail.com : admin :
  2. smborhan.elite@gmail.com : Borhan Uddin : Borhan Uddin
  3. arroy2103777@gmail.com : Amrito Roy : Amrito Roy
  4. mdmohaiminul77@gmail.com : Md Mohaiminul : Md Mohaiminul
  5. ripon11vai@gmail.com : Ripon : Ripon
  6. holysiamsrabon@gmail.com : Siam Srabon : Siam Srabon
সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ০৬:৪৪ অপরাহ্ন




অবরোধে নাই কোনো পিকেটিং, যান চলাচল স্বাভাবিক !

  • সর্বশেষ পরিমার্জন: সোমবার, ৬ নভেম্বর, ২০২৩
  • ২৪ বার পঠিত

বিপ্লব সাহা, খুলনা ব্যুরো: অবরোধের দ্বিতীয় দিনেও যান চলাচল স্বাভাবিক রোডে নাই কোন পিকেটিং। বিএনপি জামাতের ডাকা দ্বিতীয় ধাপের অবরোধ কর্মসূচির মেয়াদ বাড়লো আরো দুই দিন।

দলীয় সূত্র থেকে জানা গেছে মাঝখানে একদিন বাদ দিয়ে আবারো বুধ বৃহস্পতিবার ৪৮ ঘণ্টা বাড়িয়ে আগামী শুক্রবার ভোর ৬ টা পর্যন্ত এ কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে। এর আগে দেশের রাজনৈতিক দুই বিরোধী শক্তি বিএনপি জামাত যৌথভাবে সরকার পতনের এক দফা দাবি আদায়ের যুগপৎ আন্দোলনে বারবার ব্যর্থ হয়ে কোন উপায়ান্ত না পেয়ে সর্বশেষ পদক্ষেপ হরতাল অবরোধের মতন সহিংস কঠোর কর্মসূচির মাধ্যমে শেখ হাসিনা সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করতে এ আন্দোলনের ডাক দিয়ে একের পর এক অবরোধ কর্মসূচি পালন করার চেষ্টা করছে দলের জৈষ্ঠ নেতৃত্ববিহীন মাঠ পর্যায়ের কিছু কর্মীরা।

তারই অংশ হিসেবে গতকাল ৫ নভেম্বর রবিবার ভোর ৬ টা থেকে থেকে দেশ জুড়ে দ্বিতীয় দফায় আবারো টানা ৪৮ ঘন্টা রাজপথ রেল পথ নৌ পথ অবরোধ কর্মসূচি পালন করছে দেশের সর্ববৃহৎ বিরোধী দল বিএনপি ও জামাত ইসলাম।

তবে অবরোধের মতন কঠোর কর্মসূচি আহ্বান করে ও দল দুটির কোন নেতা কর্মীদের প্রকাশ্যে রাজপথে মিছিল পিকেটিং এমনকি পথসভা করতেও দেখা যায়নি।
তবে গতকাল সন্ধ্যার দিকে নগরীর শান্তিরধাম মোড়ে যুবদল ও ছাত্রদলের হাতে গোনা কয়েকজন কর্মীরা কিছু সময়ের জন্য মশাল মিছিল বের করলেও অবরোধের মধ্য জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি করে এমন বিরোধী আন্দোলনের মশাল মিছিলের শো-ডাউন করতে পারেনি তারা।

এ লক্ষ্যে দলীয় হাইব্রিড নেতা রুহুল করবি রিজভী বলেছেন দলের ভাবমূর্তি ধরে রাখতে আন্দোলনের গতি বাড়াতে হবে। পিকেটিং বাড়াতে হবে। রাজপথে মিছিল শোডাউন করতে হবে।

প্রয়োজনের রাজপথ রেলপথে দলীয় নেতাকর্মীরা সংঘবদ্ধভাবে অবরুদ্ধ করে দেশের সকল রাজপথ রেলপথ নৌপথ অচল করে দিতে হবে।

গতকাল সন্ধ্যায় এক প্রেস ব্লিফিং এর মাধ্যমে তিনি জেলা উপজেলা থানা পর্যায়ের সকল নেতাকর্মীদের এ নির্দেশনা দেন। এদিকে বিএনপি জামাতের ডাকা অবরোধের মধ্য গতকাল রূপসা বাগেরহাট পুরাতন সড়কের তামিলপুর ভূমি অফিস সংলগ্ন মসজিদের সামনে একটি যাত্রীবাহী বাসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা এছাড়া আর কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।

তবে খুলনা আন্তঃজেলা সোনাডাঙ্গা বাস টার্মিনাল থেকে দূরপাল্লার কোন যানবাহন ছেড়ে না গেলেও আভ্যন্তরীণ রুটে গাড়ি চলাচল ছিল স্বাভাবিক।
জুড়ে চলেছে রিক্সা ইজিবাইক মহেন্দ্র এবং থ্রি হুইলার সহ অন্যান্য যানবাহন। এবং জনচলাচল ছিল স্বাভাবিক।

এদিকে অবরোধ নামক সহিংস কর্মসূচিতে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ও নাশকতা না ঘটাতে পারে সেদিকে লক্ষ্য রেখে কেএমপি কমিশনার মোঃ মোজাম্মেল হক পুলিশ বাহিনীর কর্মকর্তাদের সাথে নিয়ে খুলনা আন্তঃজেলা সোনাডাঙ্গা বাস টার্মিনাল সহ রেল স্টেশন, লঞ্চঘাট, এবং শহরের প্রধান প্রধান এলাকায় টহল দেন। এবং নগরীর গুরুত্বপূর্ণ এলাকাসহ মহাসড়কে পুলিশের নিরাপত্তা ছিল নজরে পড়ার মতো।

তাছাড়া পুলিশ কমিশনার খুলনা মহানগরীর প্রত্যেকটি থানায় ঘুরে ঘুরে দায়িত্ব রত অফিসারদের কঠোর নির্দেশনা দিয়ে বলেছেন হরতাল অবরোধের নামে কোন নাশকতা সৃষ্টিকারী দুষ্কৃতদের ছাড় দেয়ার কোন সুযোগ নাই। তাই এদের কঠোর হাতে প্রতিহত করতে হবে।

পাশাপাশি তিনিই ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্য করে বলেন আপনারা দোকানপাট যথারীতি খুলে দোকান ব্যবসা পরিচালনা করবেন। এ অবস্থার মধ্য যদি কোন সন্ত্রাস বা দুষ্কৃতকারীরা এসে নাশকতা সৃষ্টি করার চেষ্টা বা পাঁয়তারা করে তাহলে আপনারা তাদের যে কোন কৌশলে অবরুদ্ধ করে আমাদের ফোন দিলে আমরা এসে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেবো বলে পুলিশ কমিশনার সকল শ্রেণীর মানুষদের আশ্বস্ত করেন।



সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

আরও খবর...