1. news.rifan@gmail.com : admin :
  2. smborhan.elite@gmail.com : Borhan Uddin : Borhan Uddin
  3. arroy2103777@gmail.com : Amrito Roy : Amrito Roy
  4. mdmohaiminul77@gmail.com : Md Mohaiminul : Md Mohaiminul
  5. ripon11vai@gmail.com : Ripon : Ripon
  6. holysiamsrabon@gmail.com : Siam Srabon : Siam Srabon
মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৪:২০ অপরাহ্ন




অপেক্ষার মুহুর্ত শেষ হচ্ছে না, রামগঞ্জে আসনে কে হচ্ছেন নৌকার মাঝি!

  • সর্বশেষ পরিমার্জন: রবিবার, ২৬ নভেম্বর, ২০২৩
  • ৫৮ বার পঠিত

মোহাম্মদ আলী, রামগঞ্জ আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে লক্ষ্মীপুর-১ রামগঞ্জ, আসনে কে হচ্ছেন নৌকার মাঝি, আওয়ামীলীগ নেতা নাকি জোট নেতা এ নিয়ে কৌতুহলের শেষ নেই সাধারণ ভোটারদের মাঝে। গ্রাম্য হাট-বাজারের চা দোকান খেকে শুরু করে সর্বত্র চলছে আলোচনা, সমালোচনা । চলছে চুলছেরা বিশ্লেষন, কেউ কেউ করছেন পাওয়া না পাওয়ার হিসাব। এবার এ আসন থেকে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন ফরম ক্রয় করেছেন দশ জন প্রার্থী। ইতিমধ্যে এ সকল মনোনয়ন প্রত্যাশীরা নির্বাচনী এলাকার নিজেদের অনুসারী নেতাকর্মীদের ঢাকায় নিয়ে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ এবং জমা দিয়েছেন। পাশাপাশি তারা নৌকার মাঝি হতে কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে সর্বোচ্চ তদবিরের মাধ্যমে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

ইতিমধ্যে উপজেলার বিভিন্ন অঞ্চলে বর্তমান সরকারের উন্নয়ন ও নিজেদের প্রচার প্রচারণাও চালিয়েছেন নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা। ইতিমধ্যে কয়েকটি বিভাগের মনোনয়ন নিশ্চিত করেছে দলটি। ২৬ নভেম্বর রবিবার আওয়ামীলীগের সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের সভায় চট্রগ্রাম বিভাগের দলীয় মনোনয়ন চুড়ান্ত করা হতে পারে।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, আওয়ামীলীগ থেকে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন রামগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি ও বর্তমান সংসদ সদস্য ড. আনোয়ার হোসেন খান, জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি সফিকুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক সহিদুল্লাহ সহিদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সফিক মাহমুদ পিন্টু, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি শামছুল হক মিজান, কেন্দ্রীয় যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য হাবিবুর রহমান পবন, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সমাজসেবা বিষয়ক সম্পাদক এম এ মমিন পাটওয়ারী, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র বীরমুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের পাটওয়ারী, সাবেক কর কমিশনার সুলতান মাহমুদ ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ব্যারিস্টার তৌহিদুল ইসলাম বাহার।

এছাড়া জাতীয় পার্টি থেকে মাহমুদুর রহমান মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করেছেন। নিজ দলের প্রতীক না থাকায় ইসলামী গনতান্ত্রীক পার্টির চেয়ারম্যান, প্রগতিশীল ইসলামী জোটের চেয়ারম্যান, সাবেক সাংসদ লায়ন এম এ আউয়াল তৃনমূল বিএনপি থেকে মনোয়ন ফরম সংগ্রহ করলেও আওয়ামীলীগের সাথে জোটগত ভাবে নির্বাচন করতে পারে বলে গুঞ্জন রয়েছে।

অন্যদিকে জাতীয় পার্টির একাংশ রওশন এরশাদ নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করলে এ আসনে সাবেক সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ গোফরান এ আসনে মনোনয়ন পেতে পারেন বলেও লোকমুখে প্রচারনা রয়েছে।

জানা গেছে, দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ আসনে জোটগত ভাবে নৌকার মনোনয়ন পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশনের তৎকালীন মহাসচিব লায়ন এম এ আউয়াল। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জোট থেকে এ আসনটি পায় তরিকত ফেডারেশন। নির্বাচনের ঠিক আগমুহুর্তে আউয়ালকে মহাসচিব পদ থেকে বহিস্কার করে তার সদস্য পদ বাতিল করে দলটি।

তখন প্রথমে তরিকত ফেডারেশন থেকে মনোনয়ন পান আনোয়ার হোসেন খান পরে তা আওয়ামীলীগের দলীয় মনোয়ন হিসাবে নিশ্চিত করে দলটি। সেসময় আনোয়ার হোসেন খান উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি হওয়ায় আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসাবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন তিনি। এবারও এ আসনটিতে জোট থেকে মনোনয়ন পেতে পারে বলে ধারনা অনেক আওয়ামীলীগ নেতার। তবে ধাবাহিকতা রক্ষা করতে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা বলছেন এ আসনে আর ভাড়াটিয়াদের চান না তারা। দল থেকে যে কাউকে মনোনয়ন দেয়ার দাবী তৃণমূল নেতাকর্মীদের ।

মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে কেন্দ্রীয় যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য হাবিবুর রহমান পবন বলেন, আমরা আর ভাড়াটিয়া চাইনা। আমাদের মধ্য থেকে যাকে মনোনয়ন দিবে সকলে মিলে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করা হবে।

আরেক মনোনয়ন প্রত্যাশী ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এড. সফিক মাহমুদ পিন্টু বলেন, বিগত নির্বাচন গুলোতে এ আসনে মনোনয়ন পেয়েছে জোটের শরিক দল তরিকত ফেডারেশন। আমিসহ আমরা কয়েকজন দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী । কে মনোনয়ন পাবে তা কেবলমাত্র জননেত্রী শেখ হাসিনাই জানেন। নেত্রী যাকে মনোনয়ন দিবেন তাকে জয়যুক্ত করতে সবাইকে সাথে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তিনি।

ইসলামী গনতান্ত্রিক পার্টি ও প্রগতিশীল ইসলামী জোটের চেয়ারম্যান সাবেক সংসদ সদস্য এম এ আউয়াল বলেন, আমার দল ইসলামী গনতান্ত্রিক পার্টি ও আমার নেতৃত্বে গঠিত প্রগতিশীল ইসলামী জোট তৃনমূল বিএনপির সাথে জোটগত ভাবে নির্বাচন করবে। সেক্ষেত্রে তৃনমূল বিএনপির প্রতীকে নির্বাচন করবেন বলে নিশ্চিত করেছেন তিনি।

জানা যায়, লক্ষ্মীপুর-১ (রামগঞ্জ) আসনটি ১০টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা নিয়ে গঠিত। এ আসনে মোট ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ৬১ হাজার ৭৯৩ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৩৪ হাজার ৮৩৪ জন এবং মহিলা ভোটার ১ লাখ ২৬ হাজার ৯৫৯ জন।

 

n/v



সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

আরও খবর...